আবার ফ্ল্যাট কিনে আলোচনায় এলেন অমিতাভ

মুম্বাইয়ে পাঁচটি বাংলোর মালিক বলিউডের শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন। আবার একটি নতুন ফ্ল্যাট কিনে আলোচনায় এলেন এই অভিনেতা। জানা গেছে, তাঁর এই ফ্ল্যাটের দাম ৩১ কোটি রুপি বা ৩৬ কোটি ২৪ লাখ টাকা। অমিতাভ বচ্চনের এই আবাসন ৫১৮৪ বর্গফুটের। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে তিনি ফ্ল্যাটটি কিনেছিলেন। তবে নতুন এই সম্পত্তির নিবন্ধন করা হয়েছে এ বছর এপ্রিলে। নিবন্ধন খরচের জন্য পকেট থেকে বেরিয়ে গেছে আরও ৬২ লাখ রুপি।

এই ফ্ল্যাট অমিতাভ বচ্চন টিয়র টু বিল্ডার ক্রিস্টাল গ্রুপের কাছ থেকে কিনেছেন। মুম্বাইয়ের আন্ধেরির আটলান্টিস প্রকল্পে এই ডুপ্লেক্স বাড়ি কিনেছেন তিনি। ২৭ ও ২৮ তলা নিয়ে অমিতাভের এই ডুপ্লেক্স। সঙ্গে তিনি পেয়েছেন ছয়টি কারপার্কিং। একই প্রকল্পে সানি লিওন ১৬ কোটি রুপি দিয়ে একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন। আর খ্যাতনামা পরিচালক আনন্দ এল রাইও ২৫ কোটি ৩০ লাখ রুপি দিয়ে এখানেই একটি ফ্ল্যাট নিয়েছেন।

কানাঘুষা শোনা যাচ্ছে যে অমিতাভ বচ্চন তাঁর এই নতুন সম্পত্তি কেনার সময় মহারাষ্ট্র সরকারের এক স্কিমের কাছ থেকে সুবিধা নিয়েছেন। মহারাষ্ট্র সরকার ২০২০ সালের ১ আগস্ট থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্ট্যাম্প ডিউটি ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ করেছিল। সরকার এই স্কিম চালু করেছিল রিয়েল এস্টেটের মন্দা বাজার চাঙা করতে।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্ট্যাম্প ডিউটি ছিল ৩ শতাংশ। তাই সোনাক্ষী সিনহা, অর্জুন কাপুরসহ অনেক বিটাউন তারকাও এই স্কিমের সুবিধা নিয়েছেন। মুম্বাইতে আগেই অমিতাভ বচ্চনের পাঁচটা বাংলো আছে। প্রায় ১০ হাজার বর্গফুটের ওপর নির্মিত ‘জলসা’য় তিনি পরিবারের সঙ্গে থাকেন। তাঁর আরেকটি বাংলোর নাম ‘প্রতীক্ষা’।

‘জলসা’য় পাকাপাকিভাবে থাকার আগে তিনি সপরিবার ‘প্রতীক্ষা’য় থাকতেন। দুই সন্তান অভিষেক বচ্চন এবং শ্বেতা বচ্চনের কৈশোর এই বাংলোতেই কেটেছে। এই বলিউড মেগাস্টারের আরেকটি বাংলোর নাম ‘জনক’। বাংলোটি অফিস হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তাঁর চতুর্থ বাংলোর নাম ‘বৎস’। ২০১৩ সালে অমিতাভ বচ্চন ‘জলসা’র পেছনে ৬০ কোটি রুপি দিয়ে আরও একটি বাংলো কিনেছিলেন।