চাকরি দেয়ার কথা বলে কিশোরীদের দিয়ে প’তি’তা’বৃত্তি করাতেন ‘তানজিনা খালা’

চাকরি দেয়ার কথা বলে কিশোরীদের দিয়ে পতিতাবৃত্তি করানোর অভিযোগে তানজিনা আক্তার নামে এক নারীকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগরের ডবলমুরিং থানা পুলিশ। এ সময় দুই খদ্দেরকেও গ্রেফতার করা হয়।

রোববার ভোরে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে আগ্রাবাদ সিডিএ ২৭ নম্বর সড়কের একটি ভবন থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। উদ্ধার করা হয় ভুক্তভোগী দুই কিশোরীকেও।

উদ্ধার হওয়া দুই ভুক্তভোগীর বাবা জানান, তারা জানতেন তাদের মেয়ে গার্মেন্টসে চাকরি করছে। কিন্তু তাদের মেয়েকে দিয়ে পতিতাবৃত্তি করাচ্ছিল এ তানজিনা খালা!

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, তানজিনা আক্তার এলাকায় তানজিনা খালা নামে পরিচিত। নিম্নবিত্ত পরিবারের মেয়েদের চাকরি দেন বলে সবাই তাকে এ নামে ডাকে। কিন্তু তিনি আসলে কাউকেই চাকরি দেন না। চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে প্রথমে নিজের বাসায় নিয়ে যান। এরপর তাদের পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করেন।

ওসি আরো বলেন, নারী-পুরুষ মিলে তাদের ৭-৮ জনের একটি চক্র আছে। সেই চক্রের সেকান্দার মিয়া ঘুরে ঘুরে এসব মেয়ে সংগ্রহ করেন। এরপর চাকরি দেয়ার কথা বলে তানজিনার বাসায় নিয়ে যান।

গত ৩ মে একই কায়দায় দুই কিশোরীকে তানজিনার বাসায় নেন সেকান্দর। এরপর তাদের পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করেন তানজিনা। এতে রাজি না হলে তাদের মারধরও করা হয়। এর একপর্যায়ে কৌশলে একজন তার বাবাকে ফোনে বিষয়টি জানায়। পরে বাবা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিলে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার করা হয় মূলহোতা তানজিনা আক্তারসহ আরো দুই খদ্দেরকে। এ ঘটনায় মানবপাচার আইনে একটি মামলা হয়েছে।