৪০ সেকেন্ডে ১৫ লাখ টাকা ছি’নতাই

রোদ ঝলমলে আবহাওয়া। রাস্তায় যান ও জন চলাচল আছে আর দশটি দিনের মতোই। ডেমরার কোনপাড়ায় একটি রিকশা এসে থামলো। পিছু পিছু আসা একটি সাদা প্রাইভেটকারও থামলো সাথে সাথেই। রিকশা আরোহী চালকের ভাড়াও শোধ করতে পারেননি তখনো। এরইমধ্যে সেই সাদা গাড়ি থেকে প্রথমে এক ব্যক্তি নেমে আসে। তার পিছু পিছু আসে আরো দুই ব্যক্তি।

কিছু বুঝে ওঠার আগেই রিকশা আরোহীকে সাদা গাড়িতে তুলে নিয়ে যায় অজ্ঞতরা। রিকশা চালক আর পথচারীদের চোখের সামনেই ঘটে ৪০ সেকেন্ডের এই সিনেম্যাটিক ঘটনা। তবে কেউ এগিয়ে আসেননি। কারণ অজ্ঞাতদের পরনে ছিলো ডিবি পুলিশের জ্যাকেট, হাতে হ্যান্ডকাপ আর অয়্যারলেস ।

যেই ব্যক্তিকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় তিনি আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক থেকে ১৫ লাখ টাকা তুলে ইউসিবি ব্যাংকে জমা দিতে যাচ্ছিলেন। গত ৬ সেপ্টেম্বর দিনে দুপুরে ঘটে এ ঘটনা।

ঘটনার ২৩ দিন পর ওই তিন ব্যক্তিকে গ্রে’ফতার করেছে ঢাকা মহানগর গো’য়েন্দা পুলিশ। তারা হলেন- বারেক, আবুল কাশেম ও স্বপন।

ডিবি পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, এই চক্রের মূল হোতা বারেক। পেশাদার ছিন’তাইকা’রী হিসেবে ডিএমপিতে বারেক এক পরিচিত নাম। এদের প্রত্যেকের বি’রুদ্ধে ৭ থেকে নয়টি মা’মলা রয়েছে।

তিনি আরো জানান, ছি’নতাই’কারী চক্রটি প্রাইভেটকার নিয়ে ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সামনে অবস্থান নিয়ে টাকা ওঠাতে আসা ব্যক্তিদের টার্গেট করে। এরপর ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অ’বৈধ অ’স্ত্র ও মা’দক মাম’লায় ফাঁসিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে গাড়িতে তুলে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিয়ে ভিক্টিমকে নির্জন স্থানে ফেলে চলে যায়। এভাবে চক্রটি ঢাকা ও ঢাকার বাইরে এরকম অসংখ্য ঘট’না ঘটিয়েছে। এ চক্রের কাছ থেকে ডিবি লেখা জ্যাকেট, একটি আ’গ্নেয়া’স্ত্র এবং হ্যা’ন্ডকাপ উ’দ্ধার করা হয়েছে। তাদের বি’রুদ্ধে অ’স্ত্র ও ডা’কাতির মা’মলা করেছে গোয়ে’ন্দা পুলিশ।’