টানা ৩ মাস বেতন পাবেন না মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীরা

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী তান শ্রি মহিউদ্দিন ইয়াসিন এবং তার মন্ত্রিসভার সদস্যরা চলতি জুন মাস থেকে টানা তিন মাস বেতন হাতে পাবেন না। চলমান করোনা মহামারি মোকাবিলায় কাজ করা দেশটির সম্মুখ যোদ্ধা ও সাধারণ মালয়েশীয় নাগরিকদের প্রতি সংহতি জানিয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীরা তাদের মাসিক বেতন না নিলেও এই টাকা দেশটির রাষ্ট্রীয় কোষাগারে পড়ে থাকবে না। বরং করোনা মহামারি মোকাবিলার অংশ হিসেবে তা মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল ডিজাস্টার রিলিফ ট্রাস্ট ফান্ডে বেতনের পুরো টাকাই প্রদান করা হবে।

মহামারি মোকাবিলায় সরকারের অর্থিক সহায়তা নিয়ে সোমবার দেওয়া এক বিশেষ ভাষণে এই ঘোষণা দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মহিউদ্দিন ইয়াসিন। দেশটির অন্যতম প্রধান সংবাদপত্র নিউ স্ট্রেইটস টাইমস এ খবর জানিয়েছে।

গতকাল সোমবার মালয়েশিয়ার জনগণ ও ব্যবসায়ীদের সহযোগিতার জন্য পেমারকাসা প্লাস নামে নতুন অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণার সময় প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন জানান, করোনা সংক্রান্ত ব্যয় মোকাবেলার জন্য গঠিত জাতীয় দূর্যোগ ত্রাণ তহবিলে তাদের এই বেতনের অর্থ প্রেরণ করা হবে।

সকল স্তরে প্রচেষ্টা ও দায়বদ্ধতা পালনের প্রশংসা করে তিনি বলেন, পুরো সরকার ও পুরো জনগণের মাধ্যমে মহামারি মোকাবিলার পদ্ধতিতে সরকার জোর দেয়া অব্যাহত রাখবে। আজ মঙ্গলবার থেকে সারা মালয়েশিয়ায় দুই সপ্তাহের জন্য লকডাউন কার্যকর হতে যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে মুহিউদ্দিন বলেন, ‘লকডাউন কার্যকর করার সিদ্ধান্তটি কঠিন কিন্তু প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ।

এর সফলতা আপনাদের ও সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছার ওপর নির্ভর করছে। চলাচল সীমিত করতে এবং করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শেকল ভাঙতে সরকার প্রায় সকল অর্থনৈতিক ও সামাজিক খাত বন্ধ করে দিয়েছে।’ তিনি সবাইকে বাসায় থাকতে এবং স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) সবসময় মেনে চলতে অনুরোধ জানান। তা না হলে মহামারি মোকাবেলায় যে প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে তা ব্যর্থ হতে পারে বলে তিনি সতর্ক করে দেন।

মালয়েশিয়ায় এ পর্যন্ত ৫ লাখ ৭২ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২ হাজার ৭৯৬ জন।