হেফাজত নেতাদের গ্রেপ্তারের দাবি

হেফাজত ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুফতি মোবারক উল্লাহকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। আজ বুধবার ‘সর্বস্তরের ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী’র উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

আজ বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ চত্বর থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে কাউতলী মোড়ে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহ আলম, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. লোকমান হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রবিউল হোসেন রুবেল, সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন প্রমুখ।

প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁনের কাছে হেফাজতের দুই নেতাকে গ্রেপ্তারের দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াহিদ খান লাভলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসলিম মিয়া, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহ্বায়ক আবদুন নূর, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস প্রমুখ।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত হেফাজতের কর্মসূচী চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুফতি মোবারক উল্লাহর নির্দেশে হেফাজতের নেতাকর্মীরা শহরজুড়ে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। তারা শতাধিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের পাশাপাশি লুটপাট করে।