ধান কেটে মাথায় করে চাষির বাড়ি পৌঁছে দিলেন আনসার সদস্যরা

ধান কাটা নিয়ে বড় দুশ্চিন্তায় ছিলেন পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌরসভার উত্তর মেন্দা মহল্লার দরিদ্র কৃষক ওসমান গণি। ধান কাটতে না পারায় চোখের সামনে ক্ষেতের পাকা সোনালী ধান নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। দিন ৫০০ টাকা দিয়েও শ্রমিক পাচ্ছিলেন না। দরিদ্র কৃষক ওসমান গণির মাঠের ধান কেটে দিলেন আনসার- ভিডিপি সদস্যরা। তারা কয়েকটি প্লটের পাকা ধান কেটে মাথায় করে ঘরে তুলে দিয়েছেন।

বুধবার (২ জুন) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত কাজ করে তারা কৃষকের ধান কেটে দেন। উপজেলার আনসার কোম্পানি কমান্ডার সাখাওয়াত হোসেন জানান, সারাদেশের মতো পাবনাতেও করোনার প্রভাবে শ্রমিক সংকট দেখা দেয়ায় অসহায় অনেক কৃষক পাকা ধান কাটা নিয়ে সমস্যায় রয়েছেন। এ অবস্থায় আনসার সদস্যরা ভাঙ্গুড়া উপজেলায় একজন অসহায় কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি নিজেই ধান কাটা শুরু করি। আমার সঙ্গে আনসার সদস্যরাও যোগ দেন। ক্ষেতে কাস্তে হাতে আনসার সদস্যরা হাজির হলে অবাক হয়ে যান কৃষক ওসমান গণি। তিনি বলেন, ‘ধান কাটা লিয়ে মহাবিপদে ছিলেম। আনসাররা আইসে আমাক মুহাবিপদ থিকে বাঁচালে। আমি এ্যাহন সুখী। শেখের বিটির (প্রধানমন্ত্রী) জন্য দুয়া করি।’ তিনি আরও বলেন, ‘টাকা দিলিও লেবার মিলতিচে না।