প্রেমকে যেভাবে দেখেন মিমি

টালিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীকে নিয়ে ভক্তদের কৌতুহলের শেষ নেই। এবার প্রেম নিয়ে নিজের মনোভাব জানালেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। লিঙ্গের সীমারেখাহীন প্রেমের মাস (প্রাইড মান্থ) উপলক্ষ্যে মিমি জানালেন, প্রেম তো প্রেমই। লিঙ্গ বুঝে প্রেমে পরা যায় না। যৌন আর্কষণ তৈরির ক্ষেত্রেও এসব লক্ষ্মণরেখা মিলিয়ে যায় বলে মন্তব্য করেন মিমির।

মিমির মতে দেশে স্বাধীনতা এক দিনে আসেনি। সময় লেগেছে। সেই ইতিহাসের উপরে ভরসা রেখেই সমাজ বদলের আশা করেন তিনি। ভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যমকে মিনি জানান, তিনি চিরকালই সেই মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছেন, যারা সমাজে বারবার ব্রাত্য হয়েছেন। যাদের প্রেম ও কাম কেবল নারী ও পুরুষে সীমাবদ্ধ নয়।

তাই মিমি চান নারী, পুরুষ, রূপান্তরকামী, রূপান্তরিত— বিভিন্ন লিঙ্গের মানুষ একে অপরের প্রেমে পড়ার স্বাধীনতা পান। একে অপরের প্রতি যৌনতার ইচ্ছা প্রকাশ করুন। সেই রামধনুর মতো রঙিন প্রেম উদ্যাপনে মাতলেন মিমিও।তিনি বললেন, ‘‘রোজ কাজ করি আমি সেই মানুষগুলোর সঙ্গে। খুব কাছ থেকে দেখেছি তাদের কষ্ট।’’

অভিনেত্রীর আক্ষেপ, সমাজ এখনও বদলায়নি। তাই ভালবাসতে গেলেও সমাজের চোখ রাঙানি সহ্য করতে হয় কিছু মানুষকে। তবে একই সঙ্গে তিনি আশাবাদী। কারণ তিনি জানেন কোনো বড় বদল আনতে গেলে বা বিপ্লব আনতে গেলে সময় লাগে। এক দিনে হয় না।

মিমির কথায়, ‘‘আজ একটি সৎ কারণে এই প্রেমের মাসের পালন করছেন কিছু মানুষ। আজ ১০০ জন মানুষ এগিয়ে এসেছেন। কাল এক লক্ষ মানুষ আসবেন। তারও পরের দিন এক কোটি মানুষ লিঙ্গ বিভেদ এবং প্রেমে পড়ার ক্ষেত্রে লিঙ্গের বাধা নিষেধ না মানার জন্য আওয়াজ তুলবেন।’’