নানার শোকে বিয়ের ৬ দিন পর যুবকের মৃত্যু

নাটোরের বড়াইগ্রামে নানার মৃত্যু শোক সইতে না পেরে জাকারিয়া হোসেন (২০) নামে নববিবাহিত এক যুবকের অকাল মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের উপলশহর গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। শুক্রবার সকালে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে। জাকারিয়া ওই এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি মাত্র ৬ দিন আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নুর ইসলাম সিদ্দিকী জানান, জাকারিয়ার জন্মের মাত্র তিন দিন পর তার বাবা নুর ইসলাম মারা যান। এরপর থেকে মা আদরী বেগমের সঙ্গে তিনি নানার বাড়িতেই থাকতেন। নানার স্নেহ-মমতা আর অন্যের বাড়িতে কাজ করে মায়ের উপার্জনে জাকারিয়া বড় হয়ে উঠেন।

তিনি অটোবাইক চালিয়ে মা ও নানার ভরণপোষণের ব্যয়ভার বহন করতেন। গত মঙ্গলবার তার নানা আকুল প্রামাণিক (৭৫) বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। কিন্তু পরম প্রিয় নানার মৃত মুখ দেখে জাকারিয়া সহ্য করতে পারেননি। তৎক্ষণাৎ তিনি সংজ্ঞা হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে জরুরিভাবে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে তিনি মারা যান।

এদিকে পিতার মৃত্যুর তিন দিনের মাথায় একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বিধবা মা এবং বিয়ের ৬ দিনের মাথায় স্বামীকে হারিয়ে নববিবাহিতা স্ত্রী দুজনেই এখন পাগলপ্রায়।