ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক না করার ঘোষণা কাতারের

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছে কাতার। এর কয়েক দিন আগে আরেক পারস্য উপসাগরীয় দেশ কুয়েতও ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক না করার ঘোষণা দেয়।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশন চ্যানেল সিএনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরাইলি দখলদারিত্ব অবসান না ঘটানো এবং কয়েক দশকের সংঘাতের নিরসন না হওয়া পর্যন্ত ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে না কাতার। কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শেখ আব্দুল রহমান বিন আল থানি সুস্পষ্ট ভাষায় বলেন, ইসরাইলকে স্বীকৃতি না দেওয়ার প্রধান কারণ হলো -ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে দখলদারিত্ব।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক টেলিভিশনে শুক্রবার তার এ সাক্ষাৎকারটি সম্প্রচার হয়। ওই সাক্ষাতকারে শেখ আব্দুল রহমান বিন আল থানি বলেন, যেসব কারণে কাতার এতদিন ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়নি সেসব কারণ এখনও রয়েছে। শান্তি প্রতিষ্ঠায় ইসরাইল কোনো পদক্ষেপ নেয়নি মন্তব্য করে তিনি বলেন, ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করলেই দীর্ঘদিনের এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে না।

গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় সংযুক্ত আরব আমিরাত (দুবাই), বাইরাইন, মরক্কো এবং সুদান ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে। তবে সৌদি আরব ও কাতার বলেছে, ইসরাইলের উচিত আগে ফিলিস্তিনের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা; তাহলেই তারা ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে।