নুসরাতের ‘অবৈধ বিয়ে’ প্রসঙ্গে যা বললেন নিখিল

নুসরাতের বক্তব্যের পর এবার মুখ খুললেন নিখিল জৈন। নিখিল জানান, তিনি ইতিমধ্যেই দেওয়ানি আদালতে নুসরাতের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আর তা সদ্য ঘটা ঘটনা নয়, গত এপ্রিলে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। এই মামলা আপাতত আদালতে বিচারাধীন অবস্থায় রয়েছে। নতুন করে তাই নুসরাতের বিবৃতির ওপর ভিত্তি করে তিনি কোনো মন্তব্য করতে চান না।

কয়েক দিন ধরে নুসরাত জাহানের মা হওয়ার খবরে চাঞ্চল্য টলিপাড়ায়। আগত সন্তানের পিতৃপরিচয় কী সে প্রশ্নই এখন লোকমুখে। নিখিল জৈন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এই সন্তানের পিতা তিনি নন। ছয় মাস ধরে তিনি এবং নুসরাত আলাদা থাকছেন। নুসরাতের সঙ্গে তাঁর দীর্ঘদিন কোনো যোগাযোগ নেই আর থাকবেও না।

এরই মধ্যে আজ সকালে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী এবং সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান তাঁর এবং নিখিলের সম্পর্কের ব্যাপারে। অভিনেত্রী জানান, তাঁদের বিয়েটা আসলে বৈধই নয় যে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটবে। নুসরাত-নিখিলের বিয়ে হয়েছিল তুরস্কে। তুরস্কের বিবাহ আইন অনুসারে এই অনুষ্ঠান অবৈধ। হিন্দু-মুসলিম বিবাহের ক্ষেত্রে বিশেষ বিবাহ আইন অনুসারে বিয়ে করা উচিত তা এ ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়নি।

আইনের চোখে এই বিয়ে বৈধ যখন নয়, তখন বিবাহবিচ্ছেদের কথা আসে না। এত দিন ধরে নিখিলের সঙ্গে তিনি লিভ ইন করছিলেন। তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে অনেক দিন হলো। কিন্তু তিনি এটা নিয়ে কোনো কথা বলেননি, কারণ তিনি তার ব্যক্তিগত জীবনটা ওপেন করে দিতে চাননি।

অর্থনৈতিকভাবে ভার বহন করা নিয়ে অভিনেত্রী বলেছেন, ‘আমি আমার নিজের যাবতীয় খরচ নিজে চালাই, অন্য কেউ আমার খরচ বহন করে এই কথা সত্য নয়। এমনকি আমি আমার পরিবার এবং আমার বোনের পড়াশোনার খরচ নিজেই চালাই। আমার প্রয়োজন পড়ে না অন্য কারো ক্রেডিট কার্ড আমার কাছে রেখে দেওয়ার। সময় এলে এর যোগ্য প্রমাণ আমি দেব।’

সূত্র : কলকাতা।