ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আ’ত্ম’হ’ত্যা

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আছিয়া আক্তার (২০) নামের এক শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আ’ত্ম’হ’ত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) ভোরে বগুড়া সদর উপজেলার মঠুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

আ’ত্ম’হ’ত্যা’র আগে ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন আছিয়া। নিজের ফেসবুক ওয়ালে তিনি লেখেন, ‘আমার ব্যবহারে কেউ কোনোদিন ক’ষ্ট পেলে দয়া করে আমায় মাফ করবেন। কারণ, মৃত্যু কার কখন দুয়ারে আসে আমরা কেউ বলতে পারি না। আল্লাহ পাক সবাইকে ভালো রাখবেন।’

নি’হ’ত আছিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি বগুড়ার সদর থানার মঠুরা গ্রামের মো. জালাল উদ্দীনের মেয়ে। তিন ভাই-বোনের মধ্যে আছিয়া দ্বিতীয়।

আছিয়ার ভাই আল-আমীন বলেন, আমি প্রায় রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বারান্দায় বসে পড়াশোনা করে রাত ১টার দিকে রুমে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ি। পরে মা ফজরের নামাজ পড়ার জন্য ঘুম থেকে জেগে দেখেন আছিয়া বাড়ির বারান্দায় গলায় ওড়না পেঁ’চি’য়ে ফাঁ’স দিয়ে ঝু’লে আছে। পরে আমরা তাকে নামিয়ে থানায় যাই। প্রেমজনিত কারণে আছিয়া আ’ত্ম’হ’ত্যা করেছেন বলে ধারণা করছেন তিনি।

ওসি হুমায়ুন কবির বলেন, আজ (বৃহস্পতিবার) ভোরে ফজরের নামাজের আগে ঘরের বারান্দায় গলায় ফাঁ’স দিয়ে মেয়েটি আ’ত্ম’হ’ত্যা করে। তার বাড়িতে গিয়ে লা’শ উদ্ধার করেছি। প্রেমঘটিত সমস্যার কারণে ঘটনাটি ঘটে বলে আমরা জানতে পেরেছি। তবে সে কিছুদিন থেকে মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিল বলে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আবু হেনা পহিল বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃ’খ’জনক। আমরা ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত আছি এবং ওই শিক্ষার্থীর বাসায় খোঁজ নিয়েছি।