সাকিবের ভাগ্য ম্যাচ রেফারির হাতে

আবাহনীর বিপক্ষে মাঠের ক্রিকেটে শুক্রবার সাকিব আল হাসান যে অপ্রত্যাশিত ঘটনার জন্ম দিয়েছেন তাতে তার শাস্তি বলতে গেলে নিশ্চিত। এখন অপেক্ষা ম্যাচ রেফারির রিপোর্টের।

আজ রাতেই ম্যাচ রেফারির প্রতিবেদন জমা দেয়ার কথা। এরপর সাকিবের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।ম্যাচের দুই আম্পায়ার ইমরান পারভেজ ও মাহফুজুর রহমান এবং ম্যাচ রেফারি মোরশেদুল আলমের প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা। এমনটি জানিয়েছেন ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের (সিসিডিএম) চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ।

তিনি বলেছেন- দেখেন খেলার মাঠে অনেক কিছুই হয়। আজ আবাহনী-মোহামেডানের ম্যাচে সাকিব আল হাসান অপ্রত্যাশিত কিছু করেছেন, যা আমরা ফেসবুক এবং ইউটিউব লাইভে দেখেছি। আমরা সব সময় আশা করি খেলোয়াড়রা মাঠে ইমোশনাল হবেন না। তারা নিজের রাগকে নিয়ন্ত্রণ করবেন। তবে এ ঘটনা নিয়ে ম্যাচ রেফারি একটা রিপোর্ট দেবেন। আশা করি আজ রাতের মধ্যেই তারা রিপোর্ট দেবেন। কী অপরাধে কী শাস্তি এটা নীতিমালায় দেয়া আছে।

বিসিবির এই পরিচালক আরও বলেন, আবাহনী-মোহামেডান খেলা মানেই উত্তেজনা। আমরা আজ মাঠে সেরকম উত্তেজনা দেখেছি। তবে আজ যা হয়েছে এমনটা আমরা অতীতে কখনও দেখিনি। একজন আন্তর্জাতিক প্লেয়ার এমনটা করবেন তা কখনও ভাবা যায় না। মাঠে আম্পায়াররা যে সিদ্ধান্ত দেবেন সেটাই ফাইনাল; কিন্তু সাকিব আজ যা করলেন,

আমার বিশ্বাস ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে যারা আছেন তারা বিষয়টা দেখবেন। তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে সাকিবের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর বিপক্ষে ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বলে সাকিবের আউটের আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে মেজাজ হারিয়ে সাকিব নন-স্ট্রাইকিং প্রান্তের স্টাম্পে লাথি মেরে ভেঙে দেন।

এরপর তুমুল বৃষ্টি নামলে আম্পায়ার মাহফুজুর রহমান খেলা বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন। তিনি যখন মাঠকর্মীদের কাভার আনার ইশারা দিচ্ছেন, তখন সাকিব আম্পায়ারের দিকে এগিয়ে গিয়ে তিনটি স্টাম্পই তুলে উইকেটের ওপর ছুড়ে মারেন।

এমনকি বৃষ্টির সময়ে আবাহনীর ড্রেসিংরুমের দিকে তাকিয়ে সাকিব কিছু বললে ক্ষেপে গিয়ে তেড়ে আসেন আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তখন মোহামেডানের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার সাকিবকে জাপটে ধরে থামান।