বহুদিন স্টেজে যাওয়া হচ্ছে না, ক’ষ্ট হচ্ছে ভক্তদের জন্য: জেমস

আজ ব্যান্ড সঙ্গীতের জনপ্রিয় তারকা মাহফুজ আনাম জেমস’র জন্ম’দিন। জন্ম’দিন কিভাবে কা’টাবেন। কেমন যাচ্ছে করো’নাকাল তা জানিয়েছেন তিনি। তার সাক্ষাৎকার প্রকাশ করা হলো-

* এই করো’নাকালে আপনার সময় কেমন কাটছে?

জেমস: এখন তো আমা’র ঘরব’ন্দি জীবন। সারা বছর স্টেজেই বেশি গান করি। সেটি এখন নেই। কবে নাগাদ স্টেজ শো চালু হবে তা-ও জানা নেই। তাই ঘরে বসে প্র্যাকটিস করে আর পরিবারের সদস্যদের সময় দিয়েই দিন কে’টে যাচ্ছে আমা’র।

* এমন একটি সময়ের জন্য কি কখনও প্রস্তুত ছিলেন?

জেমস: মোটেই নয়। আম’রা কখনও ভাবিনি এত দীর্ঘ সময় ঘরব’ন্দি থাকব। এ পরিস্থিতিতে ইচ্ছা থাকলেও কারও সঙ্গে দেখা করা যাচ্ছে না। মুখোমুখি বসে কথা বলা যাচ্ছে না। করো’নার এমন পরিস্থিতি কারও কাম্য ছিল না; প্রস্তুতি তো অন্য বিষয়।

* বাসায় বসে থাকতে গিয়ে বির’ক্ত হচ্ছেন নিশ্চয়ই?

জেমস: এ খা’রাপ সময় তো শুধু আমি একাই মোকাবেলা করছি না। প্রায় পুরো পৃথিবীর মানুষ করো’নার বি’রুদ্ধে ল’ড়ছে। এখন পর্যন্ত সুস্থভাবে দিনযাপন করছি, এটি একটি ভালো খবর। তবে মন খা’রাপের বিষয় হচ্ছে, করো’নার আক্রমণে অনেক মানুষ মা’রাও যাচ্ছে।

* এ পরিস্থিতিতে ব্যান্ড সঙ্গীতের ভবিষ্যৎ কী’?

জেমস: শুধু ব্যান্ডসঙ্গীত কেন, সঙ্গীতের সব ধারা, সব পেশার ভবিষ্যৎ এখন সঙ্কটময়। কবে নাগাদ আবার পরিবেশ স্বাভাবিক হবে কেউ এখনও বলতে পারছেন না। করো’নার ভ্যাকসিন বাজারে আসার আগ পর্যন্ত নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। যেখানে সব পেশাই অনিশ্চয়তার মধ্যে আছে, সেখানে ব্যান্ড নিয়ে আলাদা কিছু ভাবার সুযোগ নেই। ক’ষ্ট তো হচ্ছে, বহুদিন স্টেজে যাওয়া হচ্ছে না, ক’ষ্ট হচ্ছে ভক্ত এবং গানপ্রে’মীদের জন্যও।

* এরই মধ্যে তো জন্ম’দিন চলে এলো। দিনটি উদযাপনের কোনো পরিকল্পনা আছে?

জেমস: জন্ম’দিন নিয়ে কিছু বলার নেই, কোনো উদযাপনও নেই। কোথাও যেতে পারছি না, কেউ আসতেও পারছে না, সেখানে জন্ম’দিন নিয়ে কী’ বলার থাকবে। সুস্থভাবে বেঁচে থাকা এখন বড় বিষয়।

* তারপরও ছোট পরিসরে কোনো আয়োজন থাকবে কি?

জেমস: আমি আজ ঘরেই থাকব। ঘরে থাকা’টাও একটি নতুন আয়োজন। ‘দুষ্ট ছে’লের দল’ নামে একটি গ্রুপ আছে নগরবাউলের ভক্তদের। তারা আয়োজন করবে শুনেছি। এছাড়া আর কোনো তথ্য নেই আমা’র কাছে। তবে যদি বেঁচে থাকি এবং পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে থাকে, তাহলে আগামী বছর ভালো’ভাবেই দিনটি উদযাপন করব।

* এ দুঃসময়ে সবার প্রতি আপনার আহ্বান কী’?

জেমস: সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। নিজেকে সচেতন রাখু’ন। ভালোবাসুন, ভালোবাসতে দিন।