এক ম্যাচে চার রেকর্ডের সামনে ধোনি

শুক্রবার রাত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের তেরতম আসরের ১৪তম ম্যাচে মুখোমুখি হবে চেন্নাই সুপার কিংস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হতে যাওয়া ম্যাচটি পুরোপুরি নিজের করে নেয়ার সামনে দাঁড়িয়ে চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

কেননা এই এক ম্যাচ দিয়েই তিনি ছুঁয়ে ফেলতে পারেন চারটি বিশেষ রেকর্ড। যার তিনটি ব্যাট হাতে ও একটি উইকেটরক্ষক হিসেবে। তবে ব্যাটসম্যান হিসেবে রেকর্ডগুলো বেশ কঠিনই হতে চলেছে ধোনির জন্য। কেননা এবারের আইপিএলে ৬-৭ নম্বরের আগে ব্যাটিংয়ে নামেননি তিনি। তবু অন্যতম ফিনিশার হিসেবে যে তকমা, সেই ফর্ম তিনি ফিরে পেলে রেকর্ডগুলো হওয়া অসম্ভব নয়।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এখনও পর্যন্ত ২৯৮টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন ধোনি। হায়দরাবাদের বিপক্ষে ম্যাচে মাত্র ২টি ছক্কা মারলেই ভারতের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনশ ছক্কার ক্লাবে প্রবেশ করবেন তিনি। যেখানে আগে থেকেই রয়েছেন রোহিত শর্মা (৩৭১) ও সুরেশ রায়না (৩১১)।

ভারতের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ছক্কা ১/ রোহিত শর্মা -৩৩২ ম্যাচে ৩৭১ ছক্কা২/ সুরেশ রায়না – ৩১৯ ম্যাচে ৩১১ ছক্কা৩/ মহেন্দ্র শিং ধোনি – ৩২০ ম্যাচে ২৯৮ ছক্কা৪/ বিরাট কোহলি – ২৮৪ ম্যাচে ২৮৬ ছক্কা৫/ যুবরাজ সিং – ২৩১ ম্যাচে ২৬১ ছক্কা

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এখনও পর্যন্ত ২৯৮টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন ধোনি। হায়দরাবাদের বিপক্ষে ম্যাচে মাত্র ২টি ছক্কা মারলেই ভারতের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনশ ছক্কার ক্লাবে প্রবেশ করবেন তিনি। যেখানে আগে থেকেই রয়েছেন রোহিত শর্মা (৩৭১) ও সুরেশ রায়না (৩১১)।

ভারতের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ছক্কা১/ রোহিত শর্মা – ৩৩২ ম্যাচে ৩৭১ ছক্কা২/ সুরেশ রায়না – ৩১৯ ম্যাচে ৩১১ ছক্কা৩/ মহেন্দ্র শিং ধোনি – ৩২০ ম্যাচে ২৯৮ ছক্কা৪/ বিরাট কোহলি – ২৮৪ ম্যাচে ২৮৬ ছক্কা৫/ যুবরাজ সিং – ২৩১ ম্যাচে ২৬১ ছক্কা

এবারের আইপিএলে এখনও পর্যন্ত নিজের সেরা ছন্দের খোঁজ পাননি ধোনি। শুক্রবারের ম্যাচে যদি ফিরতে পারেন আগুনে ফর্মে এবং হাঁকাতে পারেন ৮টি ছক্কা, তাহলে এবি ডি ভিলিয়ার্সকে পেছনে ফেলে আইপিএলের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছক্কার মালিক হয়ে যাবেন তিনি। বর্তমানে আইপিএলের ধোনির ছক্কা ২১২টি।

আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ছক্কা১/ ক্রিস গেইল – ১২৫ ম্যাচে ৩২৬ ছক্কা২/ এবি ডি ভিলিয়ার্স – ১৫৭ ম্যাচে ২১৯ ছক্কা৩/ মহেন্দ্র সিং ধোনি – ১৯৩ ম্যাচে ২১২ ছক্কা৪/ রোহিত শর্মা – ১৯২ ম্যাচে ২০৪ ছক্কা৫/ সুরেশ রায়না – ১৯৩ ম্যাচে ১৯৪ ছক্কা

ছক্কার জোড়া রেকর্ড গড়া হয়তো খুব একটা সহজ হবে না ধোনির জন্য। তবে ২৪ রান করা নিশ্চয়ই কঠিন হওয়ার কথা নয়। আর তা করতে পারলে ভারতের চতুর্থ এবং সবমিলিয়ে সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আইপিএলে ৪৫০০ রানের মালিক হবেন ধোনি। এরই মধ্যে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা এবং সুরেশ রায়না আইপিএলে ৪৫০০’র বেশি রান করেছেন।

আইপিএলে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক

১/ বিরাট কোহলি – ১৮০ ম্যাচে ৫৪৩০ রান, সর্বোচ্চ ১১৩
২/ সুরেশ রায়না – ১৯৩ ম্যাচে ৫৩৬৮ রান, সর্বোচ্চ ১০০*
৩/ রোহিত শর্মা – ১৯২ ম্যাচে ৫০৬৮ রান, সর্বোচ্চ ১০৯*
৪/ ডেভিড ওয়ার্নার – ১২৯ ম্যাচে ৪৭৯৩ রান, সর্বোচ্চ ১২৬
৫/ শিখর ধাওয়ান – ১৬২ ম্যাচে ৪৬৪৮ রান, সর্বোচ্চ ৯৭*
৬/ এবি ডি ভিলিয়ার্স – ১৫৭ ম্যাচে ৪৫২৯ রান, সর্বোচ্চ ১৩৩*৭/ ক্রিস গেইল – ১২৫ ম্যাচে ৪৪৮৪ রান, সর্বোচ্চ ১৭৫*৮/ মহেন্দ্র সিং ধোনি – ১৯৩ ম্যাচে ৪৪৭৬ রান, সর্বোচ্চ ৮৪*

এ তো গেলো ব্যাটসম্যান হিসেবে তিন মাইলফলকের হিসেব। উইকেটরক্ষক হিসেবেও ক্যাচের সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে ধোনি। আর মাত্র ২টি ক্যাচ ধরলেই আইপিএলের দ্বিতীয় উইকেটরক্ষক হিসেবে ক্যাচের সেঞ্চুরি হবে তার। এরই মধ্যে কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক কিপিং গ্লাভস হাতে করেছেন ক্যাচের সেঞ্চুরি।

আইপিএলে উইকেটরক্ষকদের মধ্যে সর্বোচ্চ ক্যাচ১/ দীনেশ কার্তিক – ১৮৫ ম্যাচে ১০৩ ক্যাচ২/ মহেন্দ্র সিং ধোনি – ১৯৩ ম্যাচে ৯৮ ক্যাচ৩/ পার্থিব প্যাটেল – ১৩৯ ম্যাচে ৬৬ ক্যাচ৪/ নামান ওঝা – ১১৩ ম্যাচে ৬৫ ক্যাচ৫/ রবিন উথাপ্পা – ১৮০ ম্যাচে ৫৮ ক্যাচ

উল্লেখ্য, ডিসমিসাল অর্থাৎ ক্যাচ ও স্ট্যাম্পিং একত্রে হিসেবে আগে থেকেই সবার ওপরে ধোনি। গ্লাভস হাতে ৯৮ ক্যাচের পাশাপাশি ৩৯টি স্ট্যাম্পিংও করেছেন তিনি। যার ফলে ১৩৭ ডিসমিসাল তার ঝুলিতে। দ্বিতীয়তে থাকা দীনেশ কার্তিকের ডিসমিসাল সংখ্যা ১৩৩টি। আইপিএলে আর কোনো উইকেটরক্ষকের ১০০’র বেশি ডিসমিসাল নেই।