যে অ’ভিমানে অ’ভিনয় থেকে দূরে, জানালেন ববিতা

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অ’ভিনেত্রী। সম্প্রতি উইকিপিডিয়ায় সাতটি ভাষায় তুলে ধ’রা হয়েছে তার ব্যক্তি ও শিল্পীজীবনের নানা অধ্যায়। উইকিপিডিয়ার এই উদ্যোগ ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা হয় নন্দিত এই অ’ভিনেত্রীর সঙ্গে-

সম্প্রতি উইকিপিডিয়ায় সাত ভাষায় আপনার ব্যক্তি ও শিল্পীজীবনের নানা অধ্যায় তুলে ধ’রা হয়েছে। এ বিষয়টি কী’’ভাবে দেখছেন?

সাত ভাষাভাষীর মানুষ আমা’র স’ম্পর্কে জানতে পারবেন- ভাবতেই ভীষণ আনন্দ হচ্ছে। মনে হচ্ছে, এক জীবনে যা কিছু করেছি, তার প্রতিফলন এটি। অ’ভিনয় করে অনেক পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছি, সেটাও যেমন ভালো লাগার, তেমনি উইকিপিডিয়ার এ উদ্যোগও আনন্দের।

সারা বছর যাকে নিয়ে এত আলোচনা; অ’ভিনয়ের প্রশংসা শোনা যায়, সেই ববিতাকে আর পর্দায় দেখা যায় না- এর কারণ কী’’?

অ’ভিমান ছিল বলেই অ’ভিনয় থেকে দূরে ছিলাম। কিসের অ’ভিমান, তা নিয়ে আলোচনায় নাইবা গেলাম। তবে যা নিয়েই অ’ভিমান করি না কেন, অ’ভিনয়ে আবার ফিরব- এটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কারণ, আমি বিশ্বা’স করি, শিল্পীর বিদায় বলে কিছু নেই। তাছাড়া অ’ভিনয় জগৎ থেকে বিদায় নেওয়ার ঘোষণাও দিইনি। যার র’ক্তে অ’ভিনয় মিশে গেছে, সে কি তা থেকে দূরে থাকতে পারে, পারে না। আমা’র পক্ষেও এটা সম্ভব নয়।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকে গল্প, চরিত্র, নির্মাতা নিয়ে যত বাছবিচার করেছেন, এখনও কি সেটা সম্ভব বলে মনে করেন?

আগে যে ভাবনা নিয়ে অ’ভিনয় করেছি, এখনও সেটাই করতে চাই। আমা’র কাছে ছবির গল্প, চরিত্র, নির্মাতা আগেও যেমন গুরুত্ব পেয়েছে, এখনও পাবে। যে কোনো বয়সের চরিত্রই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে, যদি তার গল্প ভালো হয় এবং অ’ভিনয়শিল্পী তার চরিত্র দর্শকের কাছে বিশ্বা’সযোগ্য করে তুলতে পারেন। এ ক্ষেত্রে নির্মাতারও তার পরিকল্পনা মাফিক কাজটি তুলে ধরতে হবে। সেটা অসম্ভব কাজ বলে আমি মনে করি না।

নতুন কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন?

লিখিত কোনো চুক্তি এখনও কারও সঙ্গে হয়নি। কয়েকজন নির্মাতার সঙ্গে এর মধ্যে কথা হয়েছে। তার মধ্যে চারটি ছবির গল্প ভালো লেগেছে। সেই গল্পগুলো পড়েই মনে হয়েছে, অনেকদিন তো ঘরে বসে থাকলাম, এবার নিজের জগতে ফেরা যাক।

এখন কোন ধরনের ছবিতে অ’ভিনয় করতে চান?

সাহিত্যনির্ভর ছবি থেকে শুরু করে অ্যাকশন, মেলোড্রামা, রোমান্টিক, ইতিহাসনির্ভর, ফোকসহ প্রায় সব ধরনের গল্পের ছবিতে অ’ভিনয় করেছি। তবে প্রতিটি ছবিতে অ’ভিনয়ের আগে চরিত্র নির্বাচন করেই কাজ করেছি। এখনও সব ধরনের ছবিতে কাজ করতে চাই, যদি তার গল্প ও চরিত্র পছন্দসই হয়।

শুটিংয়ে কবে অংশ নিচ্ছেন?

অ’ভিনয়ের জন্য এখনও কোনো ছবি চূড়ান্ত করিনি। তাছাড়া এখনই ঘরের বাইরে বেরোনোর ইচ্ছা নেই। করো’নায় প্রিয় কিছু মানুষকে হারিয়েছি। তাই কাছের মানুষজনও এখনই বাইরে বের হতে নিষেধ করছেন। আর কিছুদিন যাক, তারপর না হয় শুটিং নিয়ে ভাবা যাবে। তাছাড়া সিনেমা বানানো শুরু যখন হয়েছে, তখন ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতেও বেশি দিন অ’পেক্ষায় থাকতে হবে বলে মনে হয় না।

এক সময় যে অঙ্গনে দিনরাত নিবেদিতভাবে কাজ করে গেছেন, সেই বিএফডিসির বদলে যাওয়া রূপ এখন কী’’ভাবে দেখেন?

এফডিসিতে [বিএফডিসি] গেলেই মনটা ভীষণ খা’রাপ হয়ে যায়। যেখানে নাওয়া-খাওয়া ভুলে দিন