কার্ড ছাপানোর পরও যে কারণে বিয়ে ভেঙে দিয়েছিলেন সালমান

বয়স ৫৫ পেরিয়েছে। কিন্তু তারপরও বলিউডের ‘সবচেয়ে কাঙ্খিত ব্যাচেলরের’ তালিকায় প্রথমদিকেই আছেন সালমান খান। এমনকি ‘ভাইজানের’ জীবনের প্রেমিকার সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। ই বয়সেরও হাজারো তরুণীর স্বপ্নের পুরুষের আসনে থাকা সালমান খান ১৯৯৯ সালে কার্ড ছাপানোর পরও নিজের বিয়ে ভেঙে দিয়েছিলেন। কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, তার নাকি বিয়ে করতে ইচ্ছে করছে না!

ঘনিষ্ঠ বন্ধু, প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদয়ালা সালমান খানের বিয়ে নিয়ে এসব কথা ফাঁস করেছেন। সাজিদ নাদিয়াদয়ালা জানান, ১৯৯৯ সালে সালমান আমাকে বলল, চলো দুই বন্ধু একদিনে বিয়ে করি। ঠিক হয়, ১৮ নভেম্বর সালমানের বাবার জন্মদিনে দুই বন্ধু বিয়ে করব। সবকিছু ঠিক হয়ে গিয়েছিল।

এমনকি সালমানের কার্ড ছাপা ও বিলি করাও হয়ে গিয়েছিল। হঠাৎই ৫-৬ দিন আগে সালমান বলে আমি বিয়ে করব না। আমার ইচ্ছা করছে না। তবে সালমান অবশ্য আমার বিয়েতে হাজির হয়েছিলেন। বিয়ে খেতে এসে আমাকেও বিয়ের আসর থেকে বিয়ে না করে পালিয়ে যাওয়ার বুদ্ধি দিয়েছিল।

তবে কার সঙ্গে সালমানের বিয়ে ঠিক হয়েছিল সে ব্যাপারে মুখ খোলেননি সাজিদ। গুজব আছে সঙ্গীতা বিজলানির সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়েছিল সালমানের। আর সঙ্গীতার প্রতারণার কারণেই নাকি বিয়ে ভেঙেছিলেন সালমান।