৫০০ বছরের শাহী মসজিদের দেয়ালে আঁকা সেই আম যাচ্ছে বিদেশে

রাজশাহীর বাঘায় প্রত্নতাত্তিক নিদর্শন ৫০০ বছরের পুরনো বাঘা শাহী মসজিদ। এই মসজিদের শিলালিপিতে আমের ঐতিহ্য বহন করছে। সেই আম রফতানি হচ্ছে বিদেশে। শনিবার পর্যন্ত ১৩ মেট্রিক টন আম রপ্তানি করা হয়েছে। ১৫২৩-১৫২৪ খ্রিস্টাব্দে (হিজরি-৯৩০) হোসেন শাহের ছেলে নুসরাত শাহ শাহী মসজিদ নির্মাণ করেন। এ শাহী মসজিদের শিলালিপিতে আমের টেরাকোটা অংকিত আছে, যা থেকে প্রমাণিত হয় বাঘার আমের সুখ্যাতি প্রাচীন আমল থেকে স্বীকৃত।

জানা যায়, জেলায় ১৭ হাজার ৯৪৩ হেক্টর আমবাগানের মধ্যে বাঘা উপজেলায় আট হাজার ৫৭০ হেক্টর জমিতে আমবাগান রয়েছে। উপজেলায় উল্লেখযোগ্যে আমের মধ্যে গোপাল ভোগ, হিমসাগার, আম্রপালি, ল্যাংড়া, তোতাপরি, ফজলি, লখনা। এই আম রপ্তানি করা হচ্ছে ইংল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, সুইডেন, নরওয়ে, পর্তুগাল, ফ্রান্স, রাশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় শাহী মসজিদের শিলালিপিতে আমের টেরাকোটা অংকিত ছবি সম্বলিত মোড়ক তৈরি করা হয়েছে। সেই মোড়কে আমের প্যাকেট জাত করে বিদেশে রপ্তানি করা হচ্ছে।এ আয়োজনের মধ্যে উত্তম কৃষি ব্যবস্থাপনা ও নীতিমালা অনুসরণ করে ৮টি শর্ত আরোপ করা হয়েছে। এ শর্তে যারা জয়ি হবেন তারা পাবেন আকর্ষণীয় পুরস্কার।

কলিগ্রামের বিদেশে চালানকারী আম ব্যবসায়ী আশরাফু-দৌলা জানান, উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় শাহী মসজিদের শিলালিপিতে আমের টেরাকোটা অংকিত ছবি সম্বলিত মোড়ক দিয়েছেন। সেই মোড়কে আমের প্যাকেট জাত করে বিদেশে আম রপ্তানি করা হচ্ছে। প্রতিদিনই আম পাঠানো হচ্ছে। শনিবার পর্যন্ত ১৩ মেট্রিক টন আম রপ্তানি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার শফিউল্লাহ সুলতান বলেন, ইতোমধ্যে বাঘার আম দেশে পরিচিত অর্জন করেছে। এ আমের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও নিরাপদ আম উৎপাদ এবং বিশ্বে পরিচিত করতে ব্র্যান্ডিং কম্পিটিশন শুরু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ১৩ মেট্রিক আমের চালান দেয়া হয়েছে। তাই এই উপজেলার আম বিশ্বে পরিচিতি করতে ব্র্যান্ডিং কম্পিটিশন শুরু করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় কৃষি অফিসের ব্যবস্থাপনায় ১০ জুন থেকে ২০ জুন পর্যন্ত এ কম্পিটিশন চলবে।