শুধু বাংলাদেশে নয়, ভারতেও ঝড় তুলেছে পরীমনি

হালের জনপ্রিয় নায়িকা পরীমণি। আলোচনা- সমালোচনা নিয়েই তার ক্যারিয়ার। বরাবরই তিনি আলোচনায় থাকেন। ফের খবরের শিরোনাম হলেন এই অভিনেত্রী। তাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। নতুন খবর হচ্ছে, ঢালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনিকে নির্যাতন-ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগের ঘটনা শুধু দেশে নয়,

আলোচিত হচ্ছে ভারতেও। দেশের সংবাদমাধ্যমগুলোর মতো ভারতের সংবাদমাধ্যমেও গুরুত্বসহকারে প্রকাশ করা হচ্ছে এই বিষয়ক সংবাদ। একের পর এক আপডেট দিয়ে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের পত্রিকাগুলো। দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা, হিন্দুস্তান টাইমস, এই সময়, কলকাতা ২৭, জি ২৪ ঘণ্টাসহ প্রায় সংবাপত্রগুলোতেই স্থান করে নিয়েছে পরীমনি ইস্যু।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরীমনির ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার পরপরই এ নিয়ে প্রথম সংবাদ প্রকাশ করে আনন্দবাজার পত্রিকা। প্রকাশিত প্রতিবেদনে তারা লিখে, ‘বাংলাদেশের একাধিক সংবাদমাধ্যম থেকে বিভিন্ন ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে নেটমাধ্যমে। সেখানেও দেখা যাচ্ছে, ঘটনাটি বলতে গিয়ে বারবার কান্নায় ভেঙে পড়ছেন তিনি। তিনি জানান, ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকার একটি অভিজাত ক্লাবে। অভিযুক্তকে পরী ব্যক্তিগতভাবে চেনেন না বলেও দাবি তার।

পরীমনিকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে হিন্দুস্তান টাইমস। প্রধানমন্ত্রীকে মা সম্বোধন করে পরীমনির দেওয়া সেই স্ট্যাটাসটি উপজীব্য করে প্রতিবেদন ছাপায় তারা। গণমাধ্যমটি লেখে, ‘খুন ও ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে’, প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি অভিনেত্রী পরীমনির।’ ১৭ জুন তারা আবার প্রতিবেদন ছাপায়। সেখানে লিখে, ‘পরীমনির বিরুদ্ধে ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ! ফের শোরগোল নায়িকাকে ঘিরে।’

ইন্ডিয়ান টাইমসের বাংলা সংস্করণ দৈনিক এই সময় লিখেছে ‘পরীমনি সাহসী অভিনেত্রী, তাই ধর্ষণ জাস্টিফায়েড?’ জি-২৪ ঘণ্টায় পরীমনির ঘটনায় দুটি খবর প্রকাশ করেছে। যার একটির শিরোনাম, ‘নারীর সম্মান, ধর্ষণের অভিযোগ, হাসিনার সাহায্যপ্রার্থী-পরীমনিকে ঘিরে কৌতূহল’।