ট্রাকের ধাক্কায় সড়কে ঝরল একই পরিবারের ৫ প্রাণ

সড়কে ট্রাকের ধাকায় একটি মাইক্রোবাসের (হাইয়েস) ৫ জন নিহত হয়েছেন। তারা সবাই একই পরিবারের সদস্য। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন মাইক্রোবাসটির আরও ৯ যাত্রী। গতকাল শনিবার (১৯ জুন) রাত ১২টার দিকে নরসিংদীর মাধবদী থানার পাঁচদোনা-ঘোড়াশাল সড়কের ভাটপাড়া সাকুরার মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মাধবদী থানার ওসি সৈয়দ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করছেন। তিনি জানান, এ দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, মুক্তি আক্তার (৩০) ও তাঁর ছেলে সাদিকুল (৮); রুবি আক্তার (৪০) ও তাঁর মেয়ে রাহিমা (৩) এবং রোকেয়া আক্তার (৫২)। তারা সবাই একই পরিবারের সদস্য।

তাছাড়া আহতরা হলেন, সাইমা (১২), ইসরাত জাহান (৮), সামসুন্নাহার (৬০), শারমিন (৩৫), রাজিয়া (৪০), আ. রশিদ (৪০) ও কাজীমুদ্দীন (৫২)। তাদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে। হতাহতদের বাড়ি ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার জিরাব এলাকায়।

ওসি সৈয়দ উদ্দিন জানান, সিলেটে মাজার জিয়ারত শেষে ১৪ জন যাত্রী একটি হাইয়েস মাইক্রোবাসে সাভারের আশুলিয়ার জিরাবো ফিরছিলেন। মাইক্রোবাসটি নরসিংদীর পাঁচদোনার ভাটপাড়া এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটির এক পাশ দুমড়েমুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসটির এক নারী যাত্রী ও এক শিশুর মৃত্যু হয়।

এ সময় স্থানীয়রা মাইক্রোবাসটির আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও এক শিশু এবং ঢাকা মেডিক্যালে নেওয়ার পথে আরও দুই নারীর মৃত্যু হয়। বাকি আহতদের রাতেই নরসিংদী সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এরপর দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ট্রাকটি জব্দ করলেও ট্রাক চালক পালিয়ে গেছে। পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত মাইক্রোবাস ও ট্রাকটি আটক করে হেফাজতে রেখেছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ারের প্রস্তুতি চলছে।