আমি সমালোচনা পছন্দ করি: পরীমনি

বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি গত কয়েক দিন ধরেই আলোচনায়। সিনেমা করে নয়; ব্যক্তিগত জীবনের কিছু তিক্ত অভিজ্ঞতা নায়িকাকে অবসাদগ্রস্ত করে ফেলেছে। তিনি শারীরিক অসুস্থতায়ও ভুগছেন।

গত সপ্তাহে পরীমনি ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন। এই মামলার পরই অভিযোগ উঠেছে— পরীমনি গুলশান ক্লাবে নীশিরাতে ভাঙচুর চালিয়েছেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরীমনিকে নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। অনেকে সমালোচনায় মেতেছেন।

চিত্রনায়িকা পরীমনি তার সমালোচনাকারীদের উদ্দেশে বার্তা দিয়েছেন। শনিবার এক ফেসবুক পোস্টে এই চিত্রনায়িকা নিজের তোলা একটি ছবির সঙ্গে ক্যাপশন জুড়ে লিখেছেন— ‘আমি সমালোচনা পছন্দ করি, এটি আমাকে সবসময় শক্তিশালী করে।’ নিজের সাহসী অবস্থানের কারণে অনেকের সমর্থন পেলেও কেউ কেউ তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে নিন্দায় মুখর হয়েছেন।

তাদের উদ্দেশ্যে দেওয়া এ স্ট্যাটাসে পরীমনির প্রতি সমর্থন জানিয়ে এক শুভাকাঙ্ক্ষী লিখেছেন— ‘সমালোচনা করতে যোগ্যতা লাগে না, বরং সমালোচিত হতে যোগ্যতা লাগে। নিন্দুকেরা যতই নিন্দা করুক না কেন, তোমার স্থান থাকবে প্রকৃত প্রেমীদের অন্তরে।’

কলকাতা থেকে একজন লিখেছেন— ‘কলকাতা থেকে আমরা তোমাকে ভীষণ পছন্দ করি। চিন্তা করো না, তুমি একদিন বিচার পাবে। ১৩ জুন সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিচার দাবি করেছিলেন পরীমনি। ঘটনার বিস্তারিত জানাতে রাত সাড়ে ১০টায় তার বনানীর বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন ডাকেন এই অভিনেত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে পরীমনি অভিযোগ করেন, চার দিন আগে আশুলিয়ার ঢাকা বোট ক্লাবে তার সঙ্গে ব্যবসায়ী নাসিরউদ্দিন মাহমুদ অশোভন আচরণ করেছেন এবং শারীরিক নির্যাতন করেছেন। এ ঘটনায় তিনি বনানী থানায় মামলা করতে গেলেও কোনো সহযোগিতা পাননি। পর দিন সোমবার সকালে চিত্রনায়িকা পরীমনি ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার

অভিযোগ এনে ছয়জনের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার কয়েক ঘণ্টা পর প্রধান আসামি ব্যবসায়ী নাসিরউদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমিসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর পর দিনই গুলশানের একটি অভিজাত ক্লাব পরীমনির বিরুদ্ধে ভাঙচুরের অভিযোগ করেন, যা অস্বীকার করেছেন নায়িকা।

২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় পরীমনির। ঢালিউডে বেশ কিছু জনপ্রিয় সিনেমা রয়েছে তার ঝুলিতে। গেল বছরের ডিসেম্বরে পরীমনি বাংলাদেশের একমাত্র তারকা হিসেবে জনপ্রিয় মার্কিন সাময়িকী ফোর্বসের ‘এশিয়ার ১০০ ডিজিটাল তারকা’র তালিকায় স্থান পেয়েছিলেন।