কারাগারে ঘুমাতে পারছেন না মিন্নি, অ্যাডজাস্ট হচ্ছে না কারাগারের পানি

বরগুনার মো. শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তাঁর স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয় আসামির ফাঁসির আদেশ দিয়েছিলেন আদালত। খালাস পেয়েছেন চারজন। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন। নতুন খবর হচ্ছে, রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার (২৫ জুন) এক আলাপচারিতায় এসব কথা বলেন মিন্নির বাবা।

তিনি বলেন, মিন্নির দাঁতে ব্যথা ও মাথা ব্যথাসহ অন্যান্য অনেক উপসর্গ রয়েছে। মিন্নি খেতে পারে না, ঘুমাতে পারে না। সব সময় অসুস্থ থাকে। তাই খুব দুর্বল হয়ে পড়েছে। কারাগারের পানি পর্যন্ত তার সঙ্গে অ্যাডজাস্ট হয় না। মিন্নির চিকিৎসার জন্য সংশ্লিষ্ট দফতরে আবেদন করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। এ আবেদন অনুমোদিত হলে মিন্নিকে বাইরের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার কারণে মিন্নিকে চেনা এখন দুষ্কর। মিন্নি কোনোদিন কোনো অভাব দেখেনি। তার খাওয়ার অভাব ছিল না, পরার অভাব ছিল না, কোনো শূন্যতাও ছিল না। মিন্নিকে আমি কলেজে নিয়ে যেতাম আবার নিয়ে আসতাম। কেউ বলতে পারবে না- কোনোদিন মিন্নি একা বাইরে বের হয়েছে। মিন্নি আজ মা-বাবা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন থেকে দূরে। তাকে কারাগারের সেলে আবদ্ধ থাকতে হয়।