‘মে’য়ে’কে না ‘পে’য়ে বা’বাকে ‘র’ড দিয়ে ‘পি’টি’য়ে ‘জ’খ’ম, ‘আ’ট’ক ৪

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় এক নারীকে উত্ত্যক্ত করাসহ বিভিন্ন সময় ‘জো’র’পূ’র্ব’ক নিজের কাছে রাখার ‘অ’ভি’যো’গ’ উঠেছে শামীম নামের এক ব্যক্তির ‘বি’রু’দ্ধে’। এর মধ্যেই ওই নারী ‘নি’খোঁ’জ’ হন।

গতকাল সোমবার ওই নারীর ‘খোঁ’জ নিতে তাঁদের বাড়িতে যান শামীম। এ সময় তাঁকে না পেয়ে শামীম ও তাঁর সহযোগীরা ওই নারীর বাবাকে রড দিয়ে ‘পি’টি’য়ে’ ‘আ’হ’ত করেন বলে ‘অ’ভি’যোগ ও’ঠে।

উপজেলার আলীগঞ্জ বাজার এলাকায় গতকাল রাতে এ ‘ঘ’ট’না’ ঘটে। এ ‘ঘ’ট’না’য় এখন পর্যন্ত চারজনকে ‘আ’ট’ক’ করা হলেও ‘অ’ভি’যু’ক্ত শামীম পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছে ‘পু’লি’শ’।

এদিকে, ‘পু’লি’শ’ বলছে, ওই নারীর সঙ্গে শামীমের বিয়ে হয়েছিল বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তবে ওই নারীর বাবা এ বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

ওই নারীর বাবা জানান, শামীম বিভিন্ন সময়ে তাঁর মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতেন এবং জোরপূর্বক নিজের কাছে নিয়ে রাখতেন। কয়েকদিন ‘ধ’রে তাঁর মেয়ে নিখোঁজ থাকায় খোঁজ নিতে তাঁদের বাড়িতে যান শামীমসহ তাঁর সহযোগীরা। এ সময় তাঁর মেয়েকে না পেয়ে তাঁকে রড দিয়ে ‘পি’টি’য়ে’ গুরুতর ‘আ’হ’ত’ করেন শামীম ও তাঁর লোকজন।

জানা গেছে, সাত বছর আগে নবীগঞ্জ উপজেলার এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল ওই নারীর। দুই বছর আগে ওই নারীকে ‘তা’লা’ক’ দেন তাঁর স্বামী। তাঁদের এক ছেলে রয়েছে। ছেলেসহ বাবার বাড়িতে থাকতেন তিনি।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চেীধুরী বলেন, ‘ওই নারীর বাবাকে ‘নি’র্যা’ত’নে’র ‘ঘ’ট’না’য় চারজনকে ‘আ’ট’ক করা হয়েছে। শামীমকে ‘ধ’র’তে ‘পু’লি’শ’ অ’ভি’যা’ন’ চালাচ্ছে।

শামীমের সঙ্গে ‘নি’খোঁ’জ ওই নারীর দুই বছর আগে বিয়ে হয়েছিল বলে জানা গেছে। তাঁকে ‘উ’দ্ধা’রে’র জন্য ‘অ’ভি’যা’ন চালাচ্ছে পুলিশ। সবকিছু ‘ত’দ’ন্ত’ করে বিস্তারিত জানা যাবে।’