ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে রজনীকান্তের মধুর স্মৃতি, যে প্রতিক্রিয়া অমিতাভের (ভিডিও)

রজনীকান্ত ও ঐশ্বরিয়া রাইয়ের বয়সের ব্যবধান ২৩ বছর। এই দুজন পর্দায় একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। রোবট ছবিতে জুটি হিসেবে ধরা দেন তারা। ২৩ বছরের ছোট কারো বিপরীতে অভিনয়ের জন্য কটাক্ষ শুনতে হয়েছে ‘রজনী’-কে। সেই ঘটনা জানতে পেরেই প্রকাশ্যেই হাসিতে ফেটে পড়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন!

ভারতের জনপ্রিয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, প্রধানত দক্ষিণী তারকা হলেও রজনীকান্তের জনপ্রিয়তায় ম্লান বড় বড় বলিউড তারকারাও। অমিতাভ, শাহরুখ,সালমানের কাছে ভারতের সবচেয়ে বড় সিনে-তারকা রজনীকান্ত। তার সঙ্গে স্ক্রিন স্পেস করার জন্য মুখিয়ে থাকেন যে কোনো অভিনেতা।

তবে ছবিতে নিজের বিপরীতে অনেক কম বয়সী নায়িকাদের ‘কাস্ট’ করানোর সুবাদে রজনীকান্তের বিরুদ্ধে মাঝেমধ্যেই উঠেছে সমালোচনার ঝড়। তা সত্ত্বেও বক্স অফিসে ছবির সুপারহিট হওয়া থেকে আটকানো যায়নি। তবে হ্যাঁ, এই নির্দিষ্ট সমালোচনায় মুখ না খুললেও সেসব মোটেই বিস্মৃত হন না রজনী।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে বক্স অফিস কাঁপিয়ে মুক্তি পেয়েছিল ‘রোবট’। শঙ্কর পরিচালিত সেই ছবিতে ‘রজনী’-র বিপরীতে নায়িকা হিসেবে ছিলেন ঐশ্বর্য রাই বচ্চন। এই ছবির প্রচারে এসে এই বিষয়ে দারুণ মজার গল্প শুনিয়েছিলেন ‘থালাইভা’। যা শুনে মঞ্চে ঐশ্বর্যর পাশে বসা থাকা অমিতাভ বচ্চন হাসতে হাসতে প্রায় আসন থেকে উল্টে পড়ে যাওয়ার জো হয়।

তা কী এমন হয়েছিল যা শুনে ‘বিগ বি’-র এই দশা হয়েছিল? আসুন তা শোনা যাক স্বয়ং রজনীকান্তের মুখেই। মঞ্চ থেকেই ‘রোবট’-এর তারকা বলা শুরু করেন যে, তখন এই ছবির শ্যুটিং শুরু হয়নি। হাতে আরও কটা দিন রয়েছে। এরকমই একদিন তার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন তারই এক রাজস্থানি বন্ধু। নাম নন্দদুলাল।

বন্ধুর সঙ্গে ছিল তার পরিবারও। রজনীর মাথা ভরা টাক দেখে তাকে নন্দের জিজ্ঞাসা ছিল চুলটুলগুলো গেল কোথায়? মুখ শুকিয়ে রজনীর জবাব, ওই আর কী,সব ঝরে গেছে। রজনীর বলার ভঙ্গিমায় ততক্ষণে মঞ্চে উপস্থিত অতিথি থেকে হলঘরে বসা সাংবাদিকের দলের মধ্যে উঠেছে হাসির রোল। এরপর একথা সেকথার পর রজনী তার বন্ধুকে জানান যে

‘রোবট’ নামের তিনি একটি ছবি করছেন, সেই ছবির নায়িকা হিসেবে রয়েছেন ঐশ্বর্য। তা শুনে তো অবাক হয়ে যান নন্দদুলাল। উত্তেজিত হয়ে জিজ্ঞেস করে বসেন,’ তা ভালো কথা,ওই ছবির নায়ক কে? মানে ঐশ্বর্যর বিপরীতে কে রয়েছেন?’ অপ্রস্তুত রজনীকান্ত কোনোরকমে আমতা আমতা করে জবাব দেন, ‘মানে ইয়ে..আমিই!’

এমন জবাব শোনার পর নাকি পাক্কা দশ মিনিট আর কোনও কথা বলতে পারেননি নন্দদুলাল। ষাটোর্ধ্ব রজনীর সঙ্গে তিরিশের কোঠায় বয়সী একজন নায়িকা কিভাবে জুটি বাঁধতে পারেন তা ভেবেই কুলকিনারা পাচ্ছিলেন না তিনি। তার ওপরে ঐশ্বর্যের মতো ওরকম ডাকসাইটে সুন্দরী নায়িকা।

দক্ষিণী তারকার কথায়, ‘ আমার সামনে আর কিছু না বললেও ঘরের বাইরে থেকে নন্দদুলালের গলা শুনতে পেয়েছিলাম। পরিবারকে নন্দ বলছিল ঐশ্বর্যর কি মাথাটা পুরোপুরি খারাপ হয়ে গেল যে রজনীর নায়িকা হচ্ছে? আচ্ছা তাও না হয়ে মানা গেল। কিন্তু অভিষেক,অমিতাভ ওরাও কি পাগল টাগল হয়ে গেলেন যে এই কান্ড বসে বসে দেখছে!’

ভিডিও