ডাকাতির প্রস্তুতিকালে যুবলীগ নেতাসহ আটক ৯

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আশুলিয়ার পবনারটেক এলাকা থেকে দেশীয় অস্ত্র ও মাদকসহ এক ইউনিয়ন যুবলীগ নেতাসহ ডাকাত দলের ৯ জন সদস্যকে গ্রফতার করেছে র‌্যাব-৪। এদের মধ্যে আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেন রয়েছেন। রোববার দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করছে র‌্যাব-৪।

শনিবার রাতে আশুলিয়ার পবনারটেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন- ডাকাত দলের নেতা ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেন (৩৮), মোহাম্মদ সানোয়ার হোসেন পাঠান (৩৫), রিপন মিয়া (৩০), মো. লিটন রেজা (রাজা) (৩৪), সাইফুল ইসলাম (৩২), আহাদ আলী (৩৮), আশরাফ আলী (৩৪),

আল আমিন (২৫) ও রোকনুজ্জামান (৩৪)। তারা সবাই পবনারটেক এলাকার বাসিন্দা। র‌্যাব-৪ জানায়, আশুলিয়ার কোন্ডলবাগ এলাকায় সংঘবদ্ধ ডাকাত দল ডাকাতির উদ্দেশ্যে অবস্থান করছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আশুলিয়ার পবনারটেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ৫টি হাঁসুয়া, ১টি দা, ১টি করাত, ১টি চাইনিজ কুড়াল, ২৬৬ পিস ইয়াবা, ১ ক্যান বিয়ার,

১১টি মোবাইল এবং নগদ ১৯ হাজার ৭২৫ টাকাসহ ৯ জন সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্রের সদস্যকে আটক করা হয়। এ ব্যাপারে র‌্যাব-৪ সিপিসি-২ এর কোম্পানি অধিনায়ক লে. কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে- আটককৃত আসামিরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ৮-১০ জন দলবদ্ধ হয়ে ঢাকা জেলার সাভার,

আশুলিয়া, ধামরাইয়ের বিভিন্ন এলাকায় রাতের অন্ধকারে যানবাহনে সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে নগদ টাকা, মোবাইল, স্বর্ণালঙ্কার প্রভৃতি ডাকাতি করে আসছিল। এ বিষয়ে ভুক্তভোগীদের তারা দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত জখম করত। তারা মাদক ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত। এ বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শামীম মণ্ডল বলেন, অনেক দিন ধরেই সানোয়ার হোসেন কোনো সাংগঠনিক কাজে আসত না। মিছিল-মিটিংয়েও তাকে পাওয়া যেত না। হঠাৎ করে আজ শুনলাম তাকে র্যা ব আটক করেছে। সিনিয়র নেতাদের কাছে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।