ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন আর কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নয়: সলিমুল্লাহ খান

গণতন্ত্রের নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে পুরোপুরি ধ্বংস করা হয়েছে বলে মন্তব্য করে লেখক ও অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন আর কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নয়। আর এটি ঘটেছে একটি ঐতিহাসিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে।

গতকাল রবিবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ উপলক্ষে এক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ওয়েবিনারের প্রথম পর্বে ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ধারণার সঙ্গে কী ঘটেছে: পুঁজিবাদের শেষ পর্যায়ে উচ্চশিক্ষার সংকট’ বিষয়ে বক্তব্য দেন অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান।

পরে এক প্রশ্নের জবাবে সলিমুল্লাহ খান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১০০ বছরে অনেক বদলেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি শিক্ষাদানমূলক এবং ঐক্য বা সমতামূলক বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখন এটি একটি তদারকিমূলক ও অধিভুক্তিমূলক বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তার শিক্ষাদানের লক্ষ্য থেকে সরে গেছে।

সলিমুল্লাহ খান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি ভাষা ছাড়া আর কিছুই শিখিনি। আইনের ছাত্র হলেও পরে আমি অর্থনীতিসহ অন্যান্য বিষয়ও শিখেছি৷ আমার ছাত্র ও শিক্ষকজীবনের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন আর কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নয়। তবে এটি এর ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছে।

এটি পূর্ববঙ্গে একটি মধ্যবিত্ত শ্রেণি তৈরি করেছিল, যা ছিল সময়ের চাহিদা। পাকিস্তান আমলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছে। কিন্তু বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর গণতন্ত্রের নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে আমরা পুরোপুরি ধ্বংস করেছি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন কোনো ‘একাডেমিক ডিসকোর্স’ নেই উল্লেখ করে সলিমুল্লাহ খান আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়িয়েছি। এগুলোতে শিক্ষণের কিছুই নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন পিছিয়ে পড়ছে? নিয়োগের ক্ষেত্রে কী ঘটছে?

মাঝারি মানের লোকেরা এখানে সেরা মানের লোকদের নিয়োগ দেন। ব্যতিক্রম থাকতে পারে। তবে আমার মনে হয়, এটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অপমান। বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে প্রাথমিকভাবে শিক্ষাদান এবং তার পরে গবেষণার কেন্দ্র। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শিক্ষাদানের লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হয়েছে। ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় অবস্থিত হলেও বর্তমান পৃথিবীর সব বিশ্ববিদ্যালয়ই চিন্তার জায়গায় ওয়েস্টার্ন। সূত্রঃ প্রথম আলো