মিটিংয়ে ডাকাও হয় না আমাকে: সুজন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন। এমন পদে থাকার পরও নাকি তাকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না। কমিটির মিটিংয়েও তাকে অগ্রাহ্য করা হয়। কমিটির কোনো মিটিংয়েই ডাকা হয় না তাকে।

সোমবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলে নিজের ক্ষোভ উগরে দিলেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক। বললেন, ‘আমি এখনও ক্রিকেট অপারেশন্সের ভাইস চেয়ারম্যান আছি কি না এটাই নিশ্চিত নই। নামে আছি, কিন্তু আমার কোনো মিটিংয়ে থাকা হয় না। আমাকে ডাকাও হয় না। মাঝখানে দুই বছর ইমেইলই পাইনি। এখন অবশ্য মাঝেমধ্যে পাই।’

সম্প্রতি বাংলাদেশ দলে যুক্ত হওয়া স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ ও ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্সের নিয়োগ বিষয়েও কিছু জানেন না বলে দাবি করেন খালেদ মাহমুদ। অথচ কোচ নিয়োগের দায়িত্ব মূলত ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির। ওই কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান হয়েও এই প্রসঙ্গে কিছুই জানেন না বিসিবির এই পরিচালক।

সেই ক্ষোভ প্রকাশ করে সুজন বলেন,‘আমি তো অপারেশন্সের ভাইস চেয়ারম্যান। আমি পরে আপনাদের কাছ থেকে জেনেছি যে দুইজন কোচ নিয়োগ করা হয়েছে। আমাকে কেউ জানায়নি। আপনারা বলবেন, আমি ডিপিএলে নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। বায়ো বাবল সুরক্ষায় ছিলাম। কিন্তু আমার কাছে তো একটা ফোন ছিল। অথচ হেরাথের কথা আমিই প্রথমে বলেছিলাম বিসিবিকে