আ’গের রাতে’র দেখা স্ব’প্নেই স’ত্যি হল, পরদিন ন’দীতে পরে মা’রা গে’লে’ন পু’লিশ বাবা ও সন্তান

গত ২৮ আ’গষ্ট শুক্র’বার ‘ম’ধুম’তী নদীতে সপ’রিবা’রে নৌকা ভ্রমন কর’তে গিয়ে কালনা’ঘাট এলা’কায় ট্রলা’র থে’কে পড়ে ন’দী’র স্রো’তে ভে’সে যায় পু’লি’শ স’স্য মুসা ও তার শিশু পুত্র আনাছ।

এরপর গত রো’ববার বাবা মু’সার লা’শ’ ও মঙ্গ’ল’বার শিশু স’ন্তা’ন আনা’সের’ লা’শ’ ভে’সে উ’ঠে ন’দীতে।

৬ মাসে’র ছে’লে আ’না’সকে নিয়ে স’ন্ন্যা’সী বে’শে নদী’তে ভে’সে বেড়া’চ্ছে’ন মুসা—নদীতে নি’খোঁ’জ হওয়ার আগের রাতে এমন স্বপ্ন দেখা’র কথা মুসা স্ত্রীকে বলে’ছিলে’ন।

সেই স্বপ্নে’র ঘট’নাই স’ত্যি হলো। এ কথা বলে আ’র্ত’নাদ ক’রছি’লেন নড়াই’লের পুলি’শ সদস্য আবু মু’সা রেজ’ওয়া’নের স্ত্রী সাজি’য়া খানম।

শো’কে হত’বি’হ্বল স্ত্রী সা’জিয়া বি’ছা’নায় নি’র্বা’ক হয়ে আছেন। মা’ঝে’মধ্যে বুক চা’পড়া’চ্ছেন আর বলছেন, ‘আমার সোনা’র সংসার, সুখের সংসা’র সব শে’ষ হয়ে গেল।’

খুলনার এপি’বি’এনএ ক’র্মরত পুলিশ সদ’স্য মুশা ছুটি’তে বা’ড়ি এসে বোন, ভ’গ্নি’পতি তাদের সন্তা’নসহ ৮ জন ম’ধুম’তি নদী’তে ট্র’লা’রে ঘু’রতে বের হয়।

এক’পর্যা’য়ে ট্র’লা’রের স্টা’র্ট ব’ন্ধ হয়ে গে’লে স্রো’তে’র টা’নে প্র’চণ্ড বে’গে নি’র্মা’ণাধী’ন সে’তুর পিলার ও ক্রে’ন বহ’ন’কারী পল্টু’নে আ’ঘা’ত লাগে।

এ সময় পি’তা মুসার কোলে থাকা শিশু পুত্র আ’নাস ন’দীতে প’ড়ে যায়। তাকে উ’দ্ধা’র করার জ’ন্য মুসা ন’দী’তে ঝাঁ’পি’য়ে পড়ে’ন। এরপ’র থে’কে শিশু পুত্র’স’হ পি’তা মুসা নি’খোঁ’জ হন।

লো’হাগ’ড়া থা’নার ভার’প্রা’প্ত ক’র্মক’র্তা সৈ’য়দ আ’শিকুর র’হমান বলেন, ঘটনাস্থল গোপা’ল’গঞ্জ এলা’কার কা’শিয়ানী থানা’র আ’ওতায়, তাদে’র স’ঙ্গে কথা বলে লা’শ ‘পো’স্টম’র্টেম ছা’ড়াই প’রিবা’রের কাছে হ’স্তা’ন্তর ক’রা হয়ে’ছে।