নতুন এক ইতিহাস রচনা করলেন ওয়ার্নার

ছিলেন না ২০০৮ সালে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের প্রথম আসরে, নিষেধা’জ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি ২০১৮ সালের আসরেও। তবু টুর্নামেন্টের ইতিহাসের সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান অস্ট্রেলিয়ার তারকা ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। যিনি এবার গড়েছেন অনন্য এক ইতিহাস।

আইপিএলের ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি; তার আগে রয়েছেন বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না ও রোহিত শর্মা।

সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির সংখ্যায় রয়েছেন তিন নম্বরে, তার ওপরে ক্রিস গেইল ও বিরাট কোহলির অবস্থান। তবে বড় একটি রে’কর্ডে ঠিকই সবার আগে নিজের নাম লিখিয়েছেন ৩৩ বছর বয়সী ওয়ার্নার।

আগে থেকেই আইপিএলে সর্বোচ্চ ফিফটির রেকর্ড ছিলো ওয়ার্নারের দ’খলে। এবার তিনি গড়ছেন আইপিএলের প্রথম ব্যাটসম্যান ‘পঞ্চাশের পঞ্চাশ’ করার কীর্তি।

অর্থাৎ আইপিএলে পঞ্চাশটি পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস খেলে ফেলেছেন ওয়ার্নার। যা করতে পারেননি টুর্নামেন্টের অন্য কোনো ব্যাটসম্যান।

বৃহস্পতিবার রাতে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ৪০ বলে ৫ চার ও ১ ছয়ের মারে ৫২ রান করেছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অধিনায়ক ওয়ার্নার।

যা তাকে এনে দিয়েছেন ‘পঞ্চাশের পঞ্চাশ’ করার গৌরব। আইপিএলে এটি তার ৪৬তম অর্ধশত। এর সঙ্গে রয়েছে আরও ৪টি সেঞ্চুরির ইনিংস। দুইয়ে মিলে ওয়ার্নারের পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংসের সংখ্যা এখন ঠিক ৫০টি।

এ রেকর্ডের ওয়ার্নারের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিরাট কোহলির পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংসের সংখ্যা ৪২টি। যিনি ৩৭ ফিফটির সঙ্গে হাঁকিয়েছেন ৫টি সেঞ্চুরি। এছাড়া সর্বোচ্চ ৬ সেঞ্চুরির মালিক ক্রিস গেইলের মোট পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংসের সংখ্যা ৩৪টি।