সপ্তম ব্যালন ডি অর উঠছে মেসির হাতে!

অবশেষে ২৮ বছর পর লিওনেল মেসির হাতে উঠলো একটি আন্তর্জাতিক ট্রফি। কোপা আমেরিকার শিরোপা উপহার দিলেন তিনি আর্জেন্টিনাকে, তাও মারাকানা স্টেডিয়ামে ব্রাজিলের মত শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে হারিয়ে। এই একটি শিরোপার মধ্য দিয়ে লিওনেল মেসি সমালোচকদের মুখ একেবারে বন্ধ করে দিয়েছেন। যদিও সেই সমালোচনাকারীদের অস্তিত্ব এখনও টিকে আছে।

সবাইকে চুপ করিয়ে দেয়ার পর এখন মেসির স্বপ্ন, সপ্তম ব্যালন ডি’অর জয় করা। অসাধারণ নৈপূণ্য দিয়ে কোপা আমেরিকা জয়ের পর মেসির সামনে এখন স্বপ্ন পূরণের দরজাটাও খুলে গেছে। এদিকে কোপা আমেরিকা, ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ কিংবা বিশ্বকাপ দিয়েও ব্যালন ডি’অর জয়ী নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। সুতরাং,

এ কারণেই দেখা যাচ্ছে, স্বাভাবিকভাবেই মেসি এবারের ব্যালন ডি’অর জয়ের অন্যতম দাবিদার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। এর আগে গত মৌসুমে ৪৭টি ম্যাচ খেলেছেন বার্সেলোনার জার্সি পরে। গোল করেছেন মোট ৩৮টি। ১৪টি অ্যাসিস্ট করেছেন। সব মিলিয়ে ২৬টি ম্যাচে সেরার পুরস্কার জিতেছেন। সে সঙ্গে জিতে নিয়েছেন পিচিচি পুরস্কার।

এবারের কোপা আমেরিকায় সর্বোচ্চ ৪টি গোল করেছেন। অ্যাসিস্ট করেছেন ৫টি। পুরো কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার মোট ১২ গোলের মধ্যে ৯টিতেই জড়িত ছিলেন তিনি। টুর্নামেন্টে জিতেছেন গোল্ডেন বল এবং গোল্ডেন বুটের পুরস্কার। কোপা আমেরিকা ছাড়াও বার্সার হয়ে কোপা ডেল রে শিরোপা জিতেছেন মেসি।

এবার ব্যালন ডি’অরের জন্য মেসির সঙ্গে তার প্রতিদ্বন্দ্বী কারা? মেসি এককভাবেই ফেবারিট নয় এবারের ব্যালন ডি’অর জয়ের জন্য। যদিও বড় বড় খেলোয়াড়দের অনেকেই তার এবারের প্রতিদ্বন্দ্বী নয়। কিলিয়ান এমবাপে এবং নেইমার এবারের লিগ ওয়ান কিংবা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কিছুই জিততে পারেননি। একইভাবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোও কিছুই জয় করেননি এবার।

এদিকে বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে এবার গোলের রেকর্ড গড়েছেন জার্মান বুন্দেসলিগায়। যদিও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কিংবা ইউরোয় হতাশ করেছেন সবাইকে। এর বাইরে ব্যালন ডি’অরের দাবিদার হচ্ছেন ইতালির দুই ডিফেন্ডার জিওর্জিও কিয়েল্লিনি এবং লিওনার্দো বোনুচ্চি। তাদের সঙ্গে ফ্রান্সের মিডফিল্ডার এনগোলা কন্তে এবং ম্যাসন মাউন্ট রয়েছেন অন্যতম দাবিদার।