আজান দিতে গিয়ে মারা গেলেন ইমাম

রতিটি মানুষ মরণশীল। ক্ষণস্থায়ী পৃথিবীতে স্থায়ী নয় কেউ-ই। দুনিয়ার টাকা-পয়সা, ধন-সম্পদ, পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব সবাইকে ছেড়ে একদিন পাড়ি জমাতে হবে ওপাড়ে। খবর হচ্ছে, নোয়াখালীর সুবর্ণচরে মসজিদ থেকে ফয়জুল করিম (২৫) নামের এক ইমামের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, আজান দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিনি মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, কোনো অভিযোগ না থাকায় ইমামের মরদেহ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহত ফয়জুল করিম উপজেলার চর বৈশাখী গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে।

তিনি উপজেলার ১ নম্বর চরজব্বর ইউনিয়নের উত্তর চরবাগ্যা গ্রামের মোহাম্মদীয়া জামে মসজিদের ইমাম ছিলেন। স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে মসজিদে জোহরের নামাজ পড়তে গিয়ে মুসল্লিরা ফয়জুলকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে উদ্ধার করে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বলেন, গত ৬ জুন ফয়জুলকে মসজিদের ইমাম হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। হাতে পোড়া দাগ দেখে ধারণা করা হচ্ছে, আজানের জন্য সুইচ দিতে গিয়ে তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়েছেন।