খুলনায় সেনাবাহিনীর টহল কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন সেনাপ্রধান

খুলনা জেলায় কভিড-১৯ মোকাবেলায় সেনাবাহিনীর টহল কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। আজ মঙ্গলবার তিনি পরিদর্শন করেন। আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এ তথ্য জানিয়েছে। আইএসপিআর বলছে, পরিদর্শনকালে সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ

প্রথমে খুলনা স্টেডিয়ামে সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের পক্ষ থেকে স্থানীয় দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম প্রত্যক্ষ করেন। এরপর তিনি সেনাবাহিনীর টহল কার্যক্রম সরেজমিনে প্রত্যক্ষ করেন এবং কর্তব্যরত সেনাসদস্যদের সাথে কথা বলেন। এ ছাড়াও তিনি স্থানীয় প্রশাসন এবং সাধারণ মানুষের সাথে মতবিনিময় করেন।

সেনাবাহিনী প্রধান খুলনা জেলায় চলমান ‘অপারেশন কভিড শিল্ড’ এর দ্বিতীয় পর্বে সেনাবাহিনী, স্থানীয় প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসমূহের ভূমিকা ও কার্যক্রম প্রত্যক্ষ করে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। চলমান করোনা মহামারির কারণে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতিতে সকলকে সরকারপ্রদত্ত বিধি-নিষেধ যথাযথভাবে পালনের মাধ্যমে করোনা মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান সেনাপ্রধান।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কভিড-১৯ মহামারিসহ যে কোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের দিক-নির্দেশনায় বেসামরিক প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসমূহের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আইএসপিআর বলছে, পরিদর্শনকালে সেনাসদরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ছাড়াও জিওসি ৫৫ পদাতিক ডিভিশন মেজর জেনারেল মো. নূরুল আনোয়ার এবং স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। খুলনা শহর পরিদর্শন শেষে সেনাপ্রধান যশোর সেনানিবাসে যান। যশোর সেনানিবাসে সেনাপ্রধান সকল পদবীর উদ্দেশে দরবারে বক্তব্য প্রদান করেন এবং সেনা কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব পুনরায় বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারের সিদ্ধান্তমোতাবেক গত ১ জুলাই হতে বেসামরিক প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসমূহকে সহায়তার উদ্দেশ্যে দেশব্যাপী সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এ প্রেক্ষিতে ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সেনাসদস্যগণ খুলনা ও ঢাকা বিভাগের ১১টি জেলায় জনসাধারণের মাঝে কভিড সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিয়মিত টহল পরিচালনার পাশাপাশি সরকার কর্তৃক জারিকৃত বিধি-নিষেধ যথাযথভাবে প্রয়োগ নিশ্চিতকল্পে বেসামরিক প্রশাসনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে বিবিধ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

এ ছাড়াও দায়িত্বপূর্ণ এলাকার জেলাসমূহে যশোর সেনানিবাস কর্তৃক নিয়মিত মেডিক্যাল ক্যাম্প ও ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অদ্যাবধি ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের পক্ষ থেকে ৩০০০ পরিবারকে ত্রাণসামগ্রী এবং ৫টি মেডিক্যাল ক্যাম্প পরিচালনার মাধ্যমে ১৩৪৩ জন সাধারণ জনগণকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ প্রদান করা হয়েছে। আজও (১৩ জুলাই) ৩০০০ পরিবারকে ত্রাণ বিতরণ করা হবে এবং ভবিষ্যতেও এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আইএসপিআর।