রাজহাঁস দিয়ে কোরবানি হবে নিম্নআয়ের মানুষের

মহান আল্লাহ তা’আলা ইসলামের রাসুল হযরত ইব্রাহীম (আঃ) কে পরীক্ষা করেছিল, মহান আল্লাহ’র এই আদেশ পালন করে কঠিন পরীক্ষায় উর্ত্তীর্ণ হন ইব্রাহীম (আঃ)। আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টি লাভের জন্য, এই ঘটনাটি স্মরন করে সারা বিশ্বের মুসলিম পরিবার প্রতি বছর এই দিনটি (ঈদুল-আযহা) নামে উদযাপন করে থাকে।

নতুন খবর হচ্ছে, চলমান লকডাউনে নিম্নআয়ের অনেক মানুষের ঘরে কোরবানির গোস্ত থাকছে না এবার। বিগত বছরগুলোতে কোরবানি দিলেও এ বছর তারা অনেকেই তা দিতে পারছেন না। তবে লোকলজ্জায় এদের কেউই মুখ খুলছেন না।

এসব নিম্নআয়ের অনেক মানুষের ঘরে গরুর গোস্ত না থাকলেও তার বিকল্প হিসেবে হাঁস বেছে নিয়েছেন। বাজারে এখন রাজহাঁসের চাহিদা তুঙ্গে। নিম্নআয়ের পাশাপাশি অনেক মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজনও কোরবানি দিতে পারছেন না বলে জানা গেছে।

লালমোহনের হাটবাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজারে রাজহাঁস বিক্রি হচ্ছে প্রচুর। পরিবারের কথা চিন্তা করে ও শিশুদের মাংসের চাহিদা পূরণের জন্য হাঁস কিনে নিচ্ছেন। বিভিন্ন সাইজের প্রতিটি রাজহাঁস ৮০০ থেকে দেড় হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ বছর কোরবানি না দেওয়া কয়েকজনের (নাম না প্রকাশের শর্তে) সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, কোরবানি দেওয়ার মতো অর্থ নেই। অনেকেরই রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। কোনোরকম খেয়ে-পরে বেঁচে থাকলেও কোরবানি দেওয়ার মতো সামর্থ্য নেই।

কেউ কেউ বলছেন, বিগত বছর কোরবানি দিয়েছেন, তখন সামর্থ্য ছিল- এ বছর সামর্থ্য নেই, তাই কোরবানি দিচ্ছি না।