বাংলাদেশিদের কোপার শিরোপা উৎসর্গ করল আর্জেন্টিনার সাবেক অধিনায়ক

নিজ দেশে ব্রাজিলকে ১-০ তে হারিয়ে ২৮ বছর পর কোপা শিরোপা জিওল মেসির আর্জেন্টিনা। এই খেলাকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের মধ্যে তুলকালাম ঘটনা ঘটে। এই খবর চাপা না থকে সদূর আর্জেন্টিনা পত্রিকায়ও স্থান পায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গটনা। আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করায় বাংলাদেশিদের কোপার শিরোপা উৎসর্গ করল আর্জেন্টিনার সাবেক অধিনায়ক।

নিঃসন্দেহে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। ৯০ মিনিটের এই খেলায় খেলোয়াড় এবং দর্শকদের মধ্যে বেশ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আর খেলা মানেই রেকর্ড ভাঙ্গার প্রতিযোগিতা। একজন খেলোয়াড়ের রেকর্ড আরেক খেলোয়াড় ভেঙ্গে দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়বে, সৃষ্টি করবে নতুন এক ইতিহাস।

নতুন খবর হচ্ছে, অনেকেই বাংলাদেশ থেকে আর্জেন্টিনার সমর্থনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেন। কেউ কেউ তো বলেন বাংলাদেশে বসে যাদের জন্য এত চিৎকার, তারা হয়তো ঠিকঠাক জানেন না আমাদের দেশের নামটাও। তবে চাইলে এখন ২০০৬ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার অধিনায়ক হুয়ান পাবলো সোরিনের পোস্টটা দেখিয়ে দেওয়া যায়।

ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছর পর কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছে আর্জেন্টিনা। দূর হয়েছে তাদের দীর্ঘদিনের আক্ষেপ। এখন দেশটির প্রতিটি কোণায়ই চলছে উৎসব। এমন সময় বাংলাদেশকে স্মরণ করেছেন পাবলো সোরিন। কোপা জয়ের পর বাংলাদেশে উৎসবের একটি ভিডিও যুক্ত করে দিয়েছেন দীর্ঘ এক পোস্ট। যেখানে তিনি স্মরণ করেছেন ২৬ বছর আগে বাংলাদেশিদের তাকে সমর্থন দেওয়ার কথা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে ভ্যারিফায়েড অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি লিখেছেন, ‘২৬ বছর আগে ১৯৯৫ সালে ব্রাজিলের বিপক্ষে আমরা কাতারে খেলেছিলাম। তখন পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা ছিল অনেক কষ্টের কাজ। যাই হোক, ব্রাজিলের সঙ্গে ওই ম্যাচে সময় গ্যালারিতে আর্জেন্টিনার পতাকা নিয়ে এসেছিল এবং হাসিমুখে আমাদের সমর্থন দিয়েছিল।

ওই পতাকায় দূর থেকে খেয়াল করেছিলাম একটা কথা লেখা, বাংলাদেশ। জোরে চিৎকার করে, লাফিয়ে, নেচে আমাদের সমর্থন জানিয়ে যাচ্ছিল ওরা। আজ আমি তাদের স্মরণ করতে চাই, আর এই মুহূর্তটা উৎসর্গ করতে চাই বাংলাদেশকে। যারা পৃথিবীর অন্যপ্রান্তে থেকেও কোপা আমেরিকা জয়ের পর রাস্তায় নেমে এসেছে। আনন্দ-উল্লাসে মেতেছে।

তিনি আরও লিখেছেন ধন্যবাদ দিয়েগো ম্যারাডোনাকে, ধন্যবাদ লিও মেসিসহ বাকিদের, যারা আমাদের ৭৮ ও ৮৬ তে শিরোপা জিততে সাহায্য করেছেন। আমাদের দেশের সমর্থকেরা ছড়িয়ে আছেন বিশ্বজুড়ে। ২৮ বছর পর আর্জেন্টিনা তাদের প্রাপ্যটা বুঝে পেল, চ্যাম্পিয়ন হলো। শনিবার (কোপা আমেরিকা ফাইনালের দিন) যেমন নীল-সাদায় ছেয়ে গেল, কাতারের সেই দিনটাতে ওদের সঙ্গে আমরা একইভাবে উদযাপন করেছিলা