ফুটবল থেকে অবসর নিলেন আরিয়েন রোবেন

নিঃসন্দেহে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। ৯০ মিনিটের এই খেলায় খেলোয়াড় এবং দর্শকদের মধ্যে বেশ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আর খেলা মানেই রেকর্ড ভাঙ্গার প্রতিযোগিতা। একজন খেলোয়াড়ের রেকর্ড আরেক খেলোয়াড় ভেঙ্গে দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়বে, সৃষ্টি করবে নতুন এক ইতিহাস।

নতুন খবর হচ্ছে, ফুটবলকে বিদায় বলে দিলেন বায়ার্ন মিউনিখ ও চেলসির সাবেক ডাচ তারকা আরিয়েন রোবেন। ডাচ ক্লাব গ্রোনিঙ্গেনে খেলে বুট জোড়া তুলে রাখলেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে শেষ হলো ২১ বছরের এক বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার।

২০১৯ সালে বায়ার্ন মিউনিখে শেষ সিজন খেলে ফুটবলকে একবার বিদায় বলেন তিনি। কিন্তু এরপর সিদ্ধান্ত পাল্টে যোগ দেন গ্রোনিঙ্গেনে, ২০০০ সালে যেখানে হয়েছিল রোবেন রূপকথার সূচনা। গ্রোনিঙ্গেন আরও এক বছরের চুক্তির প্রস্তাব দিয়েছিল রোবেনকে। কিন্তু মৌসুমের শুরুতে ইনজুরিতে পড়ে আর সে মুখো হননি এই ডাচ উইঙ্গার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের ভ্যারিফায়েড পেজ থেকে রোবেন জানান, পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ার এখানেই থামিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। সিদ্ধান্তটি নেয়া তার জন্য খুবই কঠিন ছিল। এই বিশাল যাত্রায় সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ২০১০ বিশ্বকাপে রানার্সআপ নেদারল্যান্ড টিমের অন্যতম এই সদস্য।

নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যান রোবেন তার বায়ার্ন মিউনিখ অধ্যায়ে। ৩০৯ ম্যাচে ১৪৪ গোলের পথে বাভারিয়ানদের হয়ে জিতেছেন ২০টি ট্রফি। এর মাঝে আছে ১টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ৮টি বুন্দেসলিগা।
আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ডাচদের কমলা জার্সিতেও আলো ছড়িয়েছেন রোবেন। নেদারল্যান্ডের হয়ে ৯৬ ম্যাচে করেছেন ৩৭ গোল। এছাড়াও ২০১০ সালের বিশ্বকাপে ফাইনাল পর্যন্ত যাত্রায় রোবেন ছিলেন ডাচদের অন্যতম সেরা অস্ত্র।