হাজিদের পদচারণায় মুখরিত কাবা চত্বর

মহামারি করোনাকালে দ্বিতীয় বারের মতো সীমিত সংখ্যক হাজিদের অংশগ্রহণে হজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আজ শনিবার (১৭ জুলাই) সৌদির বিভিন্ন স্থান থেকে হাজিরা মক্কার মসজিদুল হারামে এসে তাওয়াফ শুরু করেছেন। গত ২০১৯ সালে ২৫ লাখের বেশি লোক হজ পালন করলেও এ বছর সৌদিতে অবস্থানরত মাত্র ৬০ হাজার লোক হজ পালন করতে পারছেন।

মাত্র ১০ দিনে অনলাইনে সাড়ে পাঁচ লাখ আবেদনের মধ্যে মাত্র ৬০ হাজার লোককে নির্বাচন করা হয়। এবারে হজে দূরারোগ্য ব্যাধি থেকে মুক্ত ১৮ বছর থেকে ৬৫ বছর বয়সী হজযাত্রীদের নির্বাচন করা হয়।
আগামীকাল রবিবার (১৮ জুলাই) থেকে হজের কার্যক্রম শুরু হবে। আগামী ২২ জুলাই পাঁচদিন পর্যন্ত হজের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। আজ শনিবার ভোরবেলা থেকে হাজিদের পদচারণায় মুখরিত হয়েছে পবিত্র কাবা চত্বর।

এদিকে হজের প্রাথমিক কার্যক্রম হিসেবে হাজিরা ইতিমধ্যে কাবার তাওয়াফ (তাওয়াফ কুদুম) শুরু করেছেন। এরপর তাঁরা সাফা-মারওয়া সায়ি করবেন। আগামীকাল রবিবার তাঁরা মিনা প্রাঙ্গণে অবস্থান করবেন। এরপর সোমবার তাঁরা ১০ কিলোমিটার দূরের আরাফা প্রাঙ্গণে যাবেন। এরপর দিন তাঁরা ঈদুল আজহা উদযাপন করবেন।

আধুনিক ইতিহাসের সবচেয়ে কম সংখ্যক হজযাত্রীদের অংশগ্রহণে গত বছর হজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবারও সীমিত সংখ্যক অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে হজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। করোনা সংক্রমণ রোধে ২০২০ সালে দীর্ঘ ছয় মাস সর্বসাধারণের ওমরাহ কার্যক্রম স্থগিত থাকে। এরপর আধুনিক প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে সীমিত সংখ্যক অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে হজের কার্যক্রম শুরু হয়। সূত্র : আল আরাবিয়া