আগামীকাল আরাফার ময়দানে পবিত্র হজের খুতবা দেবেন কাবার ইমাম

হাদিসে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: কারো ইসলাম-গ্রহণ পূর্বকৃত সকল পাপকে মুছে দেয়। হিজরত তার পূর্বের সকল গুনাহ মুছে দেয়, ও হজ তার পূর্বের সকল পাপ মুছে দেয়।
নতুন খবর হচ্ছে, জিলহজ মাসের ৯ তারিখকে আরাফার দিন বলা হয়। হাজিরা এদিন আরাফার ময়দানে অবস্থান করেন।

সেখানে সমবেত হাজিদের উদ্দেশে মসজিদে নামিরা থেকে একজন ইমাম খুতবা প্রদান করেন। প্রতিবছর মসজিদুল হারামের ইমাম বা শীর্ষস্থানীয় একজন আলেমকে খতিব হিসেবে নির্বাচন করা হয়। এ বছর মসজিদুল হারামের ইমাম ও খতিব শায়খ ড. বান্দার বিন আবদুল আজিজ বালিলা আরাফার প্রাঙ্গণে খুতবা প্রদান করবেন। সৌদি গেজেট সূত্রে এ খবর জানা যায়।

শায়খ বান্দার বিন বালিলা ১৯৭৪ সালে মক্কায় জন্মগ্রহণ করেন। শৈশবেই তিনি পবিত্র কোরআন হিফজ সম্পন্ন করেন। ১৪১৭ হিজরিতে মক্কার উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি অনার্স শেষ করেন। ১৪২২ হিজরিতে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। ১৪২৯ হিজরি সনে তিনি ফিকাহ বিষয়ে (ইসলামী আইনশাস্ত্র) মদিনার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেন।

১৪৩১ হিজরিতে শায়খ বান্দার তায়েফ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রভাষক নিযুক্ত হন। পাশাপাশি শিক্ষা ও দাওয়াহ বিষয়ক বিভিন্ন কমিটিতে দায়িত্ব পালন করেন। মক্কা নগরীর বিভিন্ন প্রসিদ্ধ মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসেবেও দীর্ঘকাল তিনি দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৩ সালে তিনি প্রথমবার কাবার মসজিদুল হারামে সালাতুত তারাবি ও তাহাজ্জুদের ইমামতি করেন। এর কয়েক মাস পর রাজকীয় নির্দেশনায় তাঁকে মসজিদুল হারামের ইমাম নিয়োগ দেওয়া হয়। ২০১৬ সালে রাজকীয় নির্দেশনায় তাঁকে মসজিদুল হারামের খতিব নিয়োগ করা হয়।

২০২০ সালে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজের রাজকীয় নির্দেশনায় শায়খ আবদুল আজিজ আলে শায়খের নেতৃত্বে নতুন করে সর্বোচ্চ উলামা পরিষদ গঠন করা হয়। পরিষদের নতুন সদস্য হিসেবে শায়খ ড. বান্দার বিন আবদুল আজিজ বালিলাকে নিয়োগ করা হয়।