‘গ’ণ’ধ’র্ষ’ণে’র’ পর ২০ হাজার টাকায় সা’লিশ, ‘ল’জ্জা’য়’ নববধূর ‘আ’ত্ম’হ’ত্যা’ চে’ষ্টা

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার কাজিরহাট থানার আন্দারমানিক এলাকায় এক নব’বধূকে (১৭) তিন বন্ধু পাল’ক্র’মে ‘ধ’র্ষ’ণ’ করেছে বলে অভি’যোগ উঠেছে।

রবিবার (১১ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনায় স্থানীয় এক ইউপি সদস্য ‘গ’ণ’ধ’র্ষ’ণে’র’ ‘শা’স্তি’ স্বরূপ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে ঘটনাটি ধামা’চাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এতে লোক ‘ল’জ্জা’য়’ আর ‘ক্ষো’ভে’-দুঃ’খে গতকাল সোমবার সকালে ‘আ’ত্ম’হ’ত্যা’র’ চেষ্টা চালায় ওই নব’বধূ।

তাকে পার্শ্ববর্তী হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, তিন মাস আগে ওই কিশো’রীর বিয়ে হয়। তবে সে আন্ধারমানিক গ্রামে তার বাবার বাসায় অবস্থান করছিলেন।

কিশোরীর ভগ্নিপতি আবু বক্কর জানান, গত রবিবার রাত ১টার দিকে প্রতিবেশী দুলাল বেপারীর ছেলে বাবু বেপারী তার শ্যালিকাকে ডেকে নেয়। পরে একটি ঘরে আ’টকে বাবু এবং তার দুই বন্ধু রাজিব ও নাজমুল ওই নববধূকে পালা’ক্রমে ‘ধ’র্ষ’ণ’ করে।

ওই রাতেই স্থানীয় ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার পরান ভূঁইয়া মীমাং’সার নামে ২০ হাজার টাকায় ঘটনাটি ধা’মা চাপা দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু নববধূর পরিবার সমঝোতা না’কচ করে চলে যায়। তবে এ ‘অভি’যোগ’ অ’স্বী’কা’র’ করেছেন ওই ইউপি সদস্য।

গতকাল সোমবার সকালে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে ওই তরুণী নববধূ ‘বি’ষ’পা’নে’ ‘আ’ত্ম’হ’ত্যা’র’ চেষ্টা চালায়। স্বজনরা অসুস্থাবস্থায় তাকে উ’দ্ধা’র করে পার্শ্ববর্তী হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে কাজিরহাট থা’না ‘পু’লি’শে’র দুটি দল ঘটনাস্থল এবং হিজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন।

কাজিরহাট থা’নার ওসি সাজ্জাদ হোসেন জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন কিশোরী সজ্ঞাহীন। এ কারণে তার জবা’নব’ন্দি নেয়া যায়নি। তবে জ্ঞান ফিরলে তার কাছ থেকে তথ্য নিয়ে ‘অ’ভি’যু’ক্ত’দে’র’ শ’নাক্ত করে ‘গ্রে’প্তা’র’ করবে ‘পু’লি’শ’।

জেলার অতিরিক্ত ‘পু’লি’শ’ সুপার মো. নাঈমুল হক জানান, ওই নববধূর সাথে প্রতিবেশী এক যুবকের ‘অ’বৈ’ধ’ স’ম্পর্ক রয়েছে। রবিবার রাতে নববধূ তার ক’থিত ‘প্রে’মি’কে’র’ সাথে দেখা করতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাদের ধ’রে ফেলে।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ওই ঘটনার শালিস বসিয়েছিলেন। তারপরও এ বিষয়ে অধিকতর ত’দন্ত করে ‘অ’ভি’যু’ক্ত’দে’র’ ‘বি’রু’দ্ধে’ ‘আ’ই’ন’গ’ত’ ব্য’ব’স্থা নেয়ার কথা বলেন অতিরিক্ত ‘পু’লি’শ’ সুপার।