স্ত্রীর কৃতকর্মের শাস্তি দেওয়া হলো স্বামীকে!

অন্যের নামে ঋণ তুলে নিয়ে কয়েক লাখ টাকার প্রতারণা করে পালিয়ে গেছে এক নারী। কিন্তু ভুক্তভোগীরা তাকে না পেয়ে তার স্বামীকে মারধর করেছে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুরে গত রোববার ঘটনাটি ঘটেছে। হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, দুর্গাপুরের বাসিন্দা অপর্ণা দার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে।

রোববার ভুক্তভোগীরা অপর্ণার বাড়িতে ঢুকে ভাঙচুর চালায়। মারধর করা প্রতারকের স্বামী ও শাশুড়িকেও। ভেঙে ফেলা হয় ঘরের জানালা-দরজা ও মোটরবাইক। প্রতারিতদের অভিযোগ— সরকারি ঋণ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে দীর্ঘদিন ধরেই প্রতারণা চক্র ফেঁদে বসেছিলেন অপর্ণা। বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে সই জাল করে নথিপত্র তৈরি করেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেউ-ই সরকারি টাকা পাননি।

এ ছাড়া সব নথিপত্র আটকে রেখেছিলেন অপর্ণা। অন্যের নাম করে তোলা সেই ঋণ নিজেই হাতিয়েছিলেন। সুদও দিচ্ছিলেন। কয়েক মাস পর থেকে ঋণের সুদ দিতে না পারায় পালিয়ে যান। তার পর যাদের নামে ঋণ তোলা, তাদের বাড়িতে হাজির হন ব্যাংকের লোকজন। ঋণ না নিয়েও বিপদে পড়েন বেশ কয়েকজন।

অপর্ণার স্বামী বলেন, আমার স্ত্রীর একটি বন্ধুদের দল ছিল। তারা ভাগাভাগি করে এই টাকা হাতিয়েছেন। আমার স্ত্রী বেশিরভাগটা নিয়েছে। কিন্তু সে পালিয়ে গেছে। আমি যোগাযোগ করার চেষ্টা করে দেখেছি, ফোন বন্ধ।