বেতাগীতে যুবলীগ সম্পাদককে পিটিয়ে হত্যা

বরগুনার বেতাগীতে সরিষামুড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও ওই ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মো. টিটু হাওলাদারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রাজনৈতিক সহিংসতার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে জানা যায়। সোমবার দুপুরের সরিষামুড়ির ছোট গৌরিচন্না এলাকায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ওই এলাকা সংলগ্ন আমিনউদ্দিন হাওলাদারের বাড়ির সামনে রাস্তার পাশে মৃত টিটু হাওলাদারের লাশ পাওয়া যায়।

পরে বেতাগী ও বরগুনা সদর থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। যুবলীগ নেতা টিটুর স্ত্রী জানান, দুপুর ১২টার দিকে তার স্বামী টিটুকে বর্তমান চেয়ারম্যান শিপন জোমাদ্দারসহ তার লোকজন ধরে নিয়ে যায়। এলাকার লোকজনের কাছে জানতে পেরে তিনি থানায় জানান এবং থানা পুলিশ অনেক খোঁজাখুঁজি করে রাস্তার পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

তিনি আরও বলেন, তার স্বামী ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানে ইউসুফ শরিফের সমর্থক হওয়ায় নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে বর্তমান চেয়ারম্যান সিপন জোমাদ্দারের দায়ের করা একাধিক মিথ্যা মামলায়ও তাকে আসামি করা হয়েছে। একাধিকবার হামলা করা হয়েছে। বেতাগী থানা সূত্রে জানা যায়, দুপুরে টিটু হাওলাদের স্ত্রীর ফোন আসে তার স্বামীকে বর্তমান চেয়ারম্যানের লোকজন ধরে নিয়ে গেছে।

পরে পুলিশ একাধিক স্থানে সন্ধান চালিয়ে তার রক্তাক্ত জখম হওয়া লাশ উদ্ধার করে ও বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। তবে ঘটনায় জড়িত থাকার ব্যাপারে বর্তমান চেয়ারম্যান শিপন জোমাদ্দারকে একাধিকবার ফোন করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। বেতাগী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন কপু বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।