শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছে পাকিস্তান

করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট মহামারি পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরেই সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছিল পাকিস্তান। কিন্তু এবার প্রাথমিক ছাড়া অন্যসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানে দীর্ঘ ৬ মাস পর প্রথমবার মাধ্যমিক স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পুনরায় খুলে দেওয়া হচ্ছে।

দেশজুড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু করার এটাই প্রথম পদক্ষেপ বলে জানিয়েছে পাকিস্তান সরকার। তবে করোনাভাইরাসের বিস্তার যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য কঠোর বিধি-নিষেধ মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৪০৪ জন। অপরদিকে একদিনেই মারা গেছে আরও ৬ জন। একদিন আগেই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫৩৯ এবং মৃত্যু হয়েছে চারজনের।

তার আগের দিন দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫২৬ এবং মারা গেছে ৬ জন। পাকিস্তানে সাম্প্রতিক সময়ে সংক্রমণ অনেকটাই কমতে দেখা গেছে। দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে তাই লকডাউন তুলে ধাপে ধাপে সবকিছু স্বাভাবিক করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

প্রতিবেশী ভারতের তুলনায় পাকিস্তানে এখন পর্যন্ত সংক্রমণ ও মৃত্যু অনেক কম। দেশটি করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আনতে সম্ভব হয়েছে। এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই তালিকায় ভারতের অবস্থান ২য় এবং পাকিস্তান ১৭তম।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশে প্রথম করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। তারও অনেক পড়ে পাকিস্তানে প্রথম এই ভাইরাস শনাক্ত হয়।

এদিকে, ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান বলছে, পাকিস্তানে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ২ হাজার ৪২৪। এর মধ্যে মারা গেছে ৬ হাজার ৩৮৯ জন।

তবে পাকিস্তানে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে অধিকাংশই ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে। সেখানে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২ লাখ ৯০ হাজার ২৬১ জন। বর্তমানে সেখানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ৫ হাজার ৭৭৪টি। অপরদিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে ৫৬৩ জন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*