ঘুমন্ত মাকে পেট্রল দিয়ে পুড়িয়ে মারল ছেলে

শেরপুরের শ্রীবরদীতে মোটরসাইকেল কেনার টাকা না দেয়ায় পেট্রল দিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় পুড়িয়ে মাকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছেলের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়ে তার। এ ঘটনায় ছেলে হানিফ মিয়াকে (১৪) আটক করেছে পুলিশ। হানিফ পৌর শহরের সদাগর ওরফে সদা মিয়ার ছেলে।

অভিযোগ ও থানা সূত্রে জানা গেছে, ১১ অক্টোবর সকালে মোটরসাইকেল ক্রয় করার জন্য হানিফ তার মা মোছা. হনুফা বেগমের (৪০) কাছে টাকা চায়। টাকা না দেয়ায় হানিফ গভীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মায়ের শরীরে পেট্রল ছিটিয়ে গ্যাসলাইট দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

পরে বাড়ির লোকজন হনুফা বেগমকে উদ্ধার করে প্রথমে শেরপুর সদর হাসপাতাল পরবর্তীতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। হনুফার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জন ইন্সটিটিউটে প্রেরণ করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে হনুফার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতর বড়ভাই দুলাল মিয়া বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে হানিফ মিয়াকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।