ফেসবুকের প্রে’ম থেকে বিয়ে, পাঁচ দিন পরই দেখা গেল প্রে’মিকের আসল চেহারা!

ফেসবুকে তরুণ-তরুণীর পরিচয়, তারপর প্রে’মে জড়িয়ে পড়া আর সেই থেকে বিয়ে। তবে সেই সুখ আর বেশিদিন স্থায়ী হলো না। বিয়ের মাত্র পাঁচদিন পরই স্বামীর নৃ’শংস হ-ত্যার শি’কার হলেন স্ত্রী’। রাজধানীর মুগদা দক্ষিণ মান্ডার এলাকায় ঘটেছে এই ঘটনা। প্রথমে হ-ত্যাকা-ণ্ডের কোন ক্লু খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। এরপর তথ্য-প্রযু’ক্তির সহায়তায় অ’ভিযু’ক্তের অবস্থান শনা’ক্ত

করে গতকাল শুক্রবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের মোগড়াপাড়া এলাকায় থেকে লিমা’র স্বামী জহির ইস’লাম নিলয়কে গ্রে’ফতার করা হয়। জানা গেছে, বিয়ের পর দক্ষিণ মান্ডার হিরুমিয়া রোডের আব্দুল হাকিমের ১০৬৩ নম্বর বাড়ির ৩য় তলায় দুটি রুম নিয়ে ভাড়া থাকতেন লিমা আক্তার ও জহির ইস’লাম নিলয় দম্প’তি। লিমা শরীয়তপুরের পালং থা’নার আঙ্গারিয়া

গ্রামের দ্বীন ইস’লামের মে’য়ে। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, লিমা ছিলেন মা’দ”কাস’ক্ত। আর জহির একটি ছাপা কারখানায় সামান্য বেতনে কাজ করতেন। বিয়ে ছাড়াও দীর্ঘ ৭ মাস ধরে তারা একসঙ্গে ছিলেন। মুগদা থা’নার ওসি প্রলয় কুমা’র সাহা জানান, দক্ষিণ মা’ন্ডা হিরু মিয়া রোডের আব্দুল হাকিম মোল্লার বাড়ির ২ রুম নিয়ে ভাড়া থাকতেন ওই দম্পতি। ৪ নভেম্বর রাত সাড়ে

৯টার দিকে আশপাশের ভাড়াটিয়ারা ওই রুম থেকে পচা দুর্গন্ধ পেয়ে থা’নায় খবর দেয়। পরে রাতেই মৃ’তদেহটি উ’দ্ধার করা হয়। মৃ’তদেহটি প’চা গ’লা অবস্থায় ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে ৫/৬ দিন আগেই তার মৃ”’ত্যু হয়েছে। প্রলয় কুমা’র সাহা আরো বলেন, রাতেই ময়’না ত’দ’ন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতাল ম’র্গে পাঠায় পু’লিশ। ওই তরুণীর পরিবারের মাধ্যমে জানতে পেরেছি

তার মা কমলাপুর এলাকাতে থাকেন। আর বাবা শরিয়তপুর গ্রামের বাড়িতে থাকেন। ৫ নভেম্বর লিমা’র বড় ভাই সুমন কাজী অ’জ্ঞা’তনামা আ’সামি করে মুগদা থা’নায় একটি হ-ত্যা মা’মলা দা’য়ের করেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গত মা’র্চে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় লিমা’র সাথে। পরিচয়ের একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রে’মের স’ম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর ২৫

অক্টোবর তারা বিয়ে করে। বিয়ের পরদিন থেকেই তাদের মধ্যে ম’নোমা’লিন্য শুরু হয়। ঘটনার দিন ৩০ অক্টোবর রাত ১১টায় ঝগ’ড়াঝাঁ’টির একপর্যায়ে লিমা’র বুকের উপরে বসে গ’লায় ওড়না পেঁ’চিয়ে শ্বা’সরো’ধ করে হ-ত্যা করে পা’লিয়ে যায় নিলয়।