নোয়াখালীতে পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় পুলিশসহ আহত ৬

গতকাল রাতে নোয়াখালীর সুবর্ণচরে পরাজিত এক মেম্বার প্রার্থী ও তার সমর্থকদের হামলায় চার পুলিশ ও দুই আনসার সদস্য আহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টায় উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নের দারুল উলুম কাওমি মাদরাসা ও এতিমখানা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে আহতরা হলেন- কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সের কর্মরত কনস্টেবল মো. তারেক, শাহাদাত হোসেন, উক্য মারমা, রায়হান রাজা, আনসার সদস্য ফারুক হোসেন ও আলাউদ্দিন। তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এ কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা শুরু করেন কেন্দ্রে দায়িত্বরত প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মাহবুবুল ইসলাম। মেম্বার প্রার্থীদের ফলাফল ঘোষণার পর কেন্দ্রের বাইরে উত্তেজনা দেখা দেয়। এর কিছুক্ষণ পর উত্তেজিত লোকজন কেন্দ্রের দিকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে।

এদিকে কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মাকসুদুর রহমান জানান, ফলাফল ঘোষণার পর ২ নম্বর ওয়ার্ডের টিউবওয়েল প্রতীকের প্রার্থী সোহরাব হোসেন তার ফলাফল ভুল হয়েছে বলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন। এর কিছুক্ষণ পর সে তার

লোকজন নিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করেন। এতে কয়েকজন পুলিশ ও আনসার সদস্যরা আহত হন। পরে পার্শ্ববর্তী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, র্যাব, বিজিবি, পুলিশের মোবাইল টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আহতদের উদ্ধার করেন।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মাহবুবুল ইসলাম বলেন, পরাজিত হওয়ার পর সমর্থকদের নিয়ে মেম্বার প্রার্থী সোহরাব হোসেন কেন্দ্রে এ হামলা চালান। এ সময় তারা কেন্দ্রে ভাঙচুরসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আহত করেন। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল হক বলেন, ফলাফল নিয়ে আসার সময় একটি গাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা নিয়ন্ত্রণ করে।

এ ব্যাপারে চরওয়াপদা ইউনিয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলুর রহমান জানান, ফলাফল নিয়ে গুজব ছড়িয়ে একজন মেম্বার প্রার্থীর লোকজন কেন্দ্রে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।