‘বাংলাদেশী ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট’ বিশ্বকে দেখিয়ে দিতে চান মাহমুদউল্লাহ

বিশ্বকাপে দুই প্রস্তুতি ম্যাচেই হেরেছে বাংলাদেশ। মোটেও ভালো হয়নি প্রস্তুতিটা। তবে প্রস্তুতি ম্যাচের এই দুর্বিষহ স্মৃতি ভুলে ‘বাংলাদেশী ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট’ খেলে ভালো করার ব্যাপারে দৃঢ় প্রত্যয়ী টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আইসিসির বিশ্বকাপের অফিশিয়াল ভার্চুয়াল ক্যাপ্টেনস মিডিয়া ইন্টারঅ্যাকশনে যুক্ত হয়ে এই প্রত্যয় ব্যক্ত করে টাইগার অধিনায়ক।

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ডের ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি। আপাতঃদৃষ্টিতে দেখলে এই গ্রুপে বাংলাদেশই ফেভারিট। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে যা হয়েছে, তারপর আসলে বড় গলা করে কিছু বলা কঠিন। তবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মনে করেন প্রতিটি ম্যাচে একদম প্রথম বল থেকে ভালো খেলেই নিজেদের ফেভারিট প্রমাণ করবে বাংলাদেশ।

পাপুয়া নিউগিনি অধিনায়ক আসাদ ভাল্লা ও আফগানিস্তান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবীর সাথে বৃহস্পতিবার ক্যাপ্টেনস মিডিয়া ইন্টারঅ্যাকশনে যুক্ত হয়ে মাহমুদউল্লাহ নিজের দল নিয়ে বলেন, ‘গ্রুপ পর্বে আমাদের দলগুলির ভিডিও ফুটেজ আমরা দেখেছি। তবে আমি বলতে চাই যারাই এখানে এসেছে তারা প্রত্যেকে যোগ্য। কাউকেই হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই। আমাদের নিজেদের প্রমাণ করতে হবে মাঠে ভালো খেলে। একদম প্রথম বল থেকেই নিজেদের সেরাটা দেওয়ার হবে এদের বিরুদ্ধে।’

যে দলগুলোর সাথে বাংলাদেশের খেলা, তাঁদের দলে রয়েছে অনেক পাওয়ার হিটার। সেই অর্থে বাংলাদেশ দলে যা নেই। রিয়াদ অবশ্য জানালেন, বাংলাদেশের নিজস্ব ‘ব্র্যান্ডের’ ক্রিকেটে পাওয়ার হিটার খুব অত্যাবশ্যকীয় নয়।

রিয়াদের ভাষ্যে, ‘পাওয়ার হিটারে ভরপুর দলই যে আপনার থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই। ‘বাংলাদেশী ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট’ খেলেই আমরা দেখাতে চাই আমরা কি করতে পারি।’

নিজের দেশের মাটিতে বাংলাদেশের বড় শক্তি ছিল স্পিনাররা। বিশ্বকাপেও স্পিনারদের উপরই ভরসা রাখতে চান রিয়াদ। তিনি বলেন, “স্পিনাররা অনেকদিন ধরেই আমাদের বোলিং আক্রমণের মূল শক্তি। তবে আমাদের পেসাররাও বিগত তিন সিরিজে ভালো করেছে। আমাদের বোলিং আক্রমণ অনেক ভারসাম্যপূর্ণ। আশাকরি এই কন্ডিশনে পেসার স্পিনার উভয়েই মানিয়ে নেবে এবং ভালো করবে।”