বাংলাদেশের একাদশ সাজানোই মুশকিল!

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের এখন দুটি ম্যাচ বাকি আছে। সেই দুটি ম্যাচই আসলে নিয়মরক্ষার। কারণ প্রথম তিন ম্যাচ হেরে ইতোমধ্যেই বিদায়ঘণ্টা বেজে গেছে। সাধারণ দলের কাছে হারা বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ দুটি জিততে চায়। কিন্তু সেই চাওয়া আরও কঠিন হয়ে গেল সাকিব আল হাসান ইনজুরিতে পড়ায়। সেইসঙ্গে নুরুল হাসান সোহান ছিটকে যাওয়ায় বাংলাদেশ দল এখন ১৩ জনের।

সাকিব আল হাসান হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়েছেন। যে কারণে উইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচে তিনি ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন। সেই চোট বড় আকার ধারণ করেছে। অন্যদিকে তলপেটের নিচে বল লেগে সোহান এখনও ফিট নন। অর্থাৎ বাংলাদেশ স্কোয়াডে এখন সুস্থ ক্রিকেটার আছেন ১৩ জন। এমনিতেই ভাঙাচোরা অবস্থা, তার ওপর এই দুজনের চোটে দলের এখন করুণ হাল! বিসিবি জনিয়েছে, এই দুজনের পরিবর্তে কাউকে দলে নেওয়াও যাবে না।

বিশ্বকাপ দলে একমাত্র রিজার্ভ হিসেবে ছিলেন রুবেল হোসেন। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়ায় রুবেলকে মূল দলে আনা হয়েছে। দেশ থেকে বদলি কাউকে নিয়ে গেলে সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করতে তাকে বাধ্যতামূলক ৬ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। কিন্তু ততদিনে বাংলাদেশের দুটি ম্যাচ শেষ হয়ে যাবে। এই বাস্তবতা মেনেই ২ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকা ও ৪ নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে হবে টাইগারদের। জোড়াতালি দিয়েই সাজাতে হবে একাদশ।

তথ্যসূত্র: কালের কণ্ঠ