১৫ বছরের ছেলেটা আমায় অশ্লী’লভাবে ছুঁ’তে থাকে, নিজেকে ঠি’ক রা’খতে পারিনি!

সুস্মিতা সেন বলিউড থেকে বহুদিন আগেই বি’দায় নি’য়েছেন। তবুও তাঁর জ’নপ্রিয়তা আজও শী’র্ষে। তাঁকে অসংখ্য মহিলারা অ’নুপ্রেরণা হিসাবে দেখে। সুস্মিতার কথা বলা, তাঁর জীবন, তাঁর সি’দ্ধান্ত, প্রতিটি পদক্ষে’পই মহিলা পুরুষ নির্বি’শেষে সকলকেই জীবনের ক’ঠিন মু’হূর্তে এগিয়ে যেতে শেখায়।

২০১৭ সালে একটি অ্যাওয়ার্ড অনু’ষ্ঠানে উপ’স্থিত থাকতে গি’য়েছিলেন সুস্মিতা সেন। আশপাশে ছিলেন একাধিক দে’হরক্ষী। যারা অত্য’ন্ত স’ন্তর্পণে সুস্মিতাকে র’ক্ষা করে এগিয়ে নিয়ে যা’চ্ছিলেন।

তবুও ভিড়ের মাঝে সেলফি নেওয়ার জন্য ঝাঁ’পাঝাপি ক’রতে থাকে অনেকেই। সেই সু’যোগই নিয়ে বসেছিল একটি ছেলে।
ভিড়ের মাঝে সুস্মিতাকে অশা’লীনভাবে ছোঁ’য়ার চেষ্টা করেছিল সেই ছেলেটি। সুস্মিতা তাঁকে তৎক্ষ’ণাৎ ধ’রে ফে’লতেই নিমে’ষে পা’ল্টে গেল প’রিস্থিতি।

সাংঘা’তিক ভিড়। ব’ঙ্গতনয়া, মিস ইউনিভার্সকে চোখের দে’খা দে’খতে কে না চায়। এই পরি’স্থিতির সুযোগ নিয়ে বসে একটি ১৫ বছর বয়সী ছেলে। যে ভিড়ের মাঝে দে’হরক্ষীদের টপকে ঢু’কে পড়ে। এবং সুস্মিতার একেবারে নি’কটে চলে আসে। সাধারণত সেলফি তুলতে আসার জন্যই এমন সা’হসিকতা দে’খায় ভক্তরা।

তবে সেই পনেরো বছরের ছেলেটির উদ্দে’শ্য ছিল সুস্মিতাকে অশ্লী’লভাবে ছোঁ’য়ার। তবে এই বয়সেই নিজেকে ওয়ার্ক আ’উটের মাধ্যমে মে’নটেন করা সুস্মিতা কারও থেকে কম যান না।

নিজে’র তৎপরতার কারণে তিনি বুঝতে ছেলেটি সুস্মিতার দু’টি পায়ের মাঝে ছোঁ’য়া চেষ্টা করছে। স’ঙ্গে স’ঙ্গে ধ’রে ফে’লেন ছেলেটির হাত। তারপরই চ’মকে যান তিনি।আশা করেননি একটি পনেরো বছরের ছেলেকে তিনি এমন অব’স্থায় ধ’রবেন।

ছেলেটিকে ধ’রতেই গ’লা ধ’রে হাঁটতে হাঁ’টতে একপাশে নিয়ে যান। এবং বলেন, “আমি যদি এখন পু’লিশ কাছারি করি তাহলে তোমা’র জীবন ন’ষ্ট হয়ে যাবে।” স’ঙ্গে স’ঙ্গে ছেলেটি বলতে থাকে সে কিছু করেনি।

সুস্মিতার চা’পাচা’পি করায় সে স্বী’কার করে নিজে’র ভুল। এবং কথা দেয় সে আর কখনও এমন কাজ করবে না। যদিও সুস্মিতা তাকে খা’নিক হা’লকা হু’মকিও দেন।

ভবি’ষ্যতে এমন কাজ আর করলে তিনি ছেলেটির মুখ চিনে রে’খেছেন। সেই সময় সঠিক পদক্ষে’প নিতে তাঁর এক ফোঁ’টাও সময় লাগবে না। সুস্মিতা এভাবেই জনসম’ক্ষে হেনস্তা থেকে বেঁ’চেছিলেন।