দিহানের তিন বন্ধুর ভাগ্য ঝুলছে ফরেনসিক পরীক্ষায়

রাজধানীর কলাবাগানের ডলফিন গলি এলাকায় ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কুলের এক শিক্ষার্থীকে পর অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে তার বয়ফ্রেন্ড ফারদিন ইফতেখার দিহান ও তিন সহপাঠীর বি’রুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কলাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নি’হত ওই তরুণী (১৭) ও লেভেলের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার নাম আনুশকাহ নূর আমিন।

ম”য়”নাত”দন্তকারী চিকিৎসকের ভাষ্য ও পু”লি”শের সুরতহাল প্রস্তুতকারী পু’লিশ কর্মক’র্তার তথ্য অনুযায়ী, মে’য়েটির যৌ”না”ঙ্গ ও পা”য়ু”প”থে গভীর ক্ষত ছিল। দেহের দুই অংশ থেকেই র’ক্তপাত হচ্ছিল।

তাহলে একজনের পক্ষে একসঙ্গে এমন নৃ’শংসতা চালানো সম্ভব নয়। দিহান যদি একাই এমন নৃ’শংসতা চালায়, তাহলে সে কি নে’শাগ্রস্ত ছিল, নাকি নিজে এবং মে’য়েটাকে উত্তে’জনাকর কিছু খাইয়েছিল?

দিহানের তিন বন্ধুকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেওয়া হলেও প্রয়োজনে আবারও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে থা’নায় ডা’কা হবে বলে জানিয়েছে পু’লিশ।

তবে দিহান একা, নাকি তার সঙ্গে তিন বন্ধু জ’ড়িত তা নিশ্চিত হতে ফরেনসিক পরীক্ষার প্রতিবেদনের জন্য অ’পেক্ষা করতে হবে বলে জানিয়েছে পু’লিশ কর্মক’র্তারা।

ইতিমধ্যে পু’লিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে রোববার কারাগারে থাকা আ’সামি দিহানের ডিএনএ পরীক্ষার আদেশ দিয়েছেন আ’দালত। ফরেনসিক রিপোর্ট ও দিহানের ডিএনএ টেস্টের পর জানা যাবে তার বন্ধুরা জ’ড়িত কিনা।