জে’নে নিন বগলের কালো দাগ দূর করার ৪ ঘরোয়া সমাধান

ত্বকের যত্নে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি মানুষ স’চেতন। সৌন্দর্য্য নিয়েও তারা অনেক বেশি চিন্তাভাবনা করেন। হাল আমলের পোশাক পরতে অনেকে পছন্দ করলেও কিছু স’মস্যার কারণে তারা তা এড়িয়ে চলেন। অনেকে স্লিভলেস পোশাক পরতে চাইলেও বগলের নিচের কালো দাগের কারণে লজ্জা পান।

এছাড়া অনেক মানুষ বগলের নিচের কালো দাগ দূ’র করার ইচ্ছা করেন কিন্তু হাতের কাছে সহজ সমাধান খুঁজে না পাওয়ায় সেই ইচ্ছা পূরণ হয় না। কয়েকটি ঘরোয়া উপায় মেনে চললে সহজেই এই স’মস্যার হাত থেকে মু’ক্তি পাওয়া যেতে পারে।

চলুন বগলের কালো দাগ দূ’র করার চারটি ঘরোয় স’মস্যার সমাধান জে’নে নিই-
আলুর রস ও ভিনিগার: শ’রীরের যেকোনো দাগ দূ’র করার ক্ষেত্রে আলুর রস খুবই কা’র্যকরী। আলু হলো প্রাকৃতিক ব্লিচ ও অ্যান্টিইরিট্যান্ট।

শুধু দাগ প’রিষ্কারই নয়, দাগের স’ঙ্গে ত্বকের ওই অংশের চুলকানি বা অস্ব’স্তি ও সারিয়ে তোলে আলুর রস। কয়েক ফালি আলু বেটে তাতে ২ চামচের মতো ভিনিগার মিশিয়ে তা বগলে মিনিট দশেক লা’গিয়ে রাখু’ন। শেভিংয়ের পরে তো বটেই, নিয়মিত সপ্তাহে অন্ত’ত ৩ দিন এই মি’শ্রণ বগলে লা’গান। কালচে দাগ ‘ভ্যানিশ’ হয়ে যাবে সহজেই।

লেবু ও চিনি: লেবুর রস প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে। লেবুর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট দাগ দূ’র ক’রতে অত্যন্ত কা’র্যকরী। শেভিংয়ের পর ত্বকের ওই অংশ লেবুর রস দিয়ে মিনিট পাঁচেক ভিজিয়ে রাখু’ন। এর স’ঙ্গেই প্রতিদিন স্নানের সময় লেবুর রস লা’গান শেভিংয়ের জায়গায়।

সহজেই ত্বকের কালচে দাগ মিলিয়ে যাবে। আরও ভাল ফল পেতে লেবুর স’ঙ্গে চিনি মেশান। চিনি গলে না যাওয়া অবধি ঘষুন। অ্যাপেল সিডার ভিনিগার: শেভিংয়ের পর অ্যাপেল সিডার ভিনিগার তুলো দিয়ে মিনিট পাঁচেক বগলে ভিজিয়ে রাখু’ন। সপ্তাহে অন্ত’ত ৩-৪ দিন এভাবে অ্যাপেল সিডার ভিনিগার লা’গালে সহজেই বগলের কালচে দাগ দূ’র হয়ে যাবে।

অলিভ অয়েল: দু’চামচ অলিভ অয়েলের স’ঙ্গে এক চামচ লাল চিনি মেশান। সপ্তাহে তিন দিন এই মি’শ্রণ বগলে লা’গালে সহজেই ওই অংশের ত্বকের কালচে দাগ ফিকে হয়ে মিলিয়ে যাবে।