শ’রীরের কালচে দা’গসহ ব্রণ দূর হবে কলার খোসায়!

কলা খাওয়ার পর স্বা’ভাবিকভাবেই এর খোসাটি ফে’লে দেয়া হয়। তবে ফেলনা এই খোসাটিও কিন্তু বেশ কাজে’র। এই কলার খোসা আপনি ব্যবহার ক’রতে পারেন রূপচর্চার প্রাকৃতিক উপাদান হিসেবে।

কলার খোসায় রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফ্যাটি অ্যাসিড, আয়রন, পটাসিয়াম ও জিঙ্ক। এসব উপাদান ত্বকের যত্নে অনন্য। ত্বকের কালচে দাগ, বলিরেখা ও ব্রণ দূ’র ক’রতে পারে কলার খোসা। জে’নে নিন কলার খোসা কীভাবে ব্যবহার করবেন-

ব্রণ দূ’র ক’রতে কলার খোসা প্রথমে ব্লেন্ড করে নিন। দুই টেবিল চামচ কলার খোসার পেস্টের স’ঙ্গে আধা চা চামচ মধু ও সমপরিমাণ হলুদ মেশান। ফেসপ্যাকটি ১৫ মিনিট লা’গিয়ে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। যাদের ত্বকে সবে মাত্র বলিরেখা পড়তে শুরু করেছে তারা এই উপায়ে পরিচর্যা করুন।

একটি কলার খোসা পেস্ট করে ডিম মিশিয়ে নিন। মি’শ্রণটি ত্বকে ২০ মিনিট লা’গিয়ে রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ তো সেরেই যায় কিন্তু এর দাগ তো উঠতেই চায় না। এজন্য রাতে ঘুমানোর আগে কলার খোসার ভেতরের অংশ ব্রণের দাগের উপর ঘষুন। সারারাত রেখে পরদিন সকালে ধুয়ে ফেলুন ত্বক।

শ’রীরের কালচে দাগ দূ’র ক’রতে অনেকেই বিভিন্ন টোটকা ব্যবহার করে থাকেন। তবে কখনো কি কলার খোসা ব্যবহার করে দেখেছেন? এজন্য এক টেবিল চামচ কলার খোসার পেস্ট ও দুই চা চামচ টমেটো মিশিয়ে নিন।

শ’রীরের যেসব স্থানে কালচে দাগ রয়েছে সেখানে লা’গিয়ে রাখু’ন আধা ঘণ্টা। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। একদিন পর পর ব্যবহার করলে দূ’র হবে ত্বকের জেদি কালচে দাগ।