ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে রাবি শিক্ষার্থীর আ’ত্মহ’ত্যা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মোবাসসিরা তাহসিন ইরা নামে এক শিক্ষার্থীর ঝু’লন্ত লা’শ উদ্ধার করেছে পু’লিশ। শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর মির্জাপুর এলাকায় একটি ছাত্রীমেস থেকে তার লা’শ উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি আ’ত্মহ’ত্যা করেছেন। আ’ত্মহ’ত্যার আগে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসও দেন তিনি।

মোবাসসিরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার বাড়ি নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলায়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক হাসিবুল আলম প্রধান।

জানা গেছে, শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে সর্বশেষ ইরার সাথে কথা হয় হোস্টেলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের। তারপর তার সাড়াশব্দ না পেয়ে ডাকাডাকি করলেও না ওঠায় দরজা ভে’ঙে তাকে ঝু’লন্ত অবস্থায় দেখতে পান।

পরে পু’লিশ ও আইন বিভাগের সভাপতিকে খবর দেন। খবর পেয়ে ঘ’টনাস্থলে যান মতিহার থা’না-পু’লিশ ও আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. হাসিবুল আলম প্রধান ও বিভাগের অধ্যাপক এম এ হান্নান। পরে ওই ছাত্রীর বাড়িতে খবর দেন তারা।

এদিকে মৃ’ত্যুর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওই ছাত্রী একটি স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘একমাত্র ‘চিনু আপা’ ইজ রিয়েল। কারণ একমাত্র উনিই উনার ছোঁয়া দিয়ে মানুষের ডি’প্রেশন কাটান। কাইন্ডলি কেউ উনাকে ইগ্নোর করবেন না এবং একটি করে লাভ দিয়ে যাবেন।’ তার ফেসবুক আইডির বায়োতে ‘আই এম ফাইন, জাস্ট টায়ার্ড’ লেখা দেখা যায়।

এ বিষয়ে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. হাসিবুল আলম প্রধান বলেন, ঠিক কী কারণে এই ঘটনা ঘটল, তা এখনো জানা যায়নি। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি আ’ত্মহ’ত্যা করেছেন।

মতিহার থানার এসআই ইমরান হোসেন জানান, লা’শ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এখনো সেখানেই আছে।